নেশার টাকা দেননি মা, রাগে গলা কেটে হত্যা করল ছেলে

নেশার টাকা দেননি মা, রাগে গলা কেটে হত্যা করল ছেলে

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৫৬ ৩ এপ্রিল ২০২১  

ইনসেটে শহিদুল ইসলাম

ইনসেটে শহিদুল ইসলাম

পঞ্চগড়ে নেশার টাকা না পেয়ে গলা কেটে মাকে হত্যা করেছে মাদকাসক্ত ছেলে। ঘটনার পর অভিযুক্ত শহিদুল ইসলাম পালিয়ে যায়।

শনিবার দুপুরে সদর উপজেলার পশ্চিম মিঠাপুকুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত জয়তুন বেগম একই এলাকার আব্দুল মজিদের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানায়, শহিদুল এলাকায় মাদকাসক্ত হিসেবে চিহ্নিত। মাঝে মধ্যেই মাদক কেনার টাকার জন্য বাবা-মা ও বোনকে মারধর করতো সে। তার এমন আচরণের কারণে বিয়ের কয়েক বছর পর নিজের স্ত্রীও চলে যান। তিন-চার বছর আগে নেশার টাকা না পাওয়ায় বাবাকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়েছিল শহিদুল। পরে স্থানীয়রা তাকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। কয়েক মাস আগে জেল থেকে বের হয়ে ফের মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে।

শনিবার দুপুরে টিউবওয়েল পাড়ে গোসল করতে যান মা জয়তুন বেগম। এ সময় হঠাৎ চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা গিয়ে দেখেন রক্তাক্ত অবস্থায় জয়তুনকে ফেলে রেখে পালিয়ে যাচ্ছে শহিদুল। পরে প্রতিবেশীরা তাকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের স্বামী আব্দুল মজিদ বলেন, আমি নামাজ পড়তে গিয়েছিলাম। জয়তুন গোসল করতে গিয়েছিল। এ সময় মায়ের কাছে নেশার টাকা চায় শহিদুল। টাকা না দেয়ায় ঘর থেকে ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার মায়ের গলায় কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়। এর আগে টাকা না দেয়ায় আমাকেও কুপিয়েছে শহিদুল।

প্রতিবেশী আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমি গিয়ে দেখি শহিদুলের মা পড়ে আছে। চারপাশে রক্ত ছড়িয়ে পড়ছে। পরে তাকে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মাদকাসক্ত ছেলের জন্য পরিবারটির এ করুণ পরিণতি হলো।

পঞ্চগড়ের এডিশনাল এসপি এসএম শফিকুল ইসলাম বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মাদকাসক্ত ছেলের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর