ব্যাংক ডাকাতি নয়, নিরাপত্তাকর্মীর ‘খারাপ আচরণের’ প্রতিশোধ নিতেই হামলা

ব্যাংক ডাকাতি নয়, নিরাপত্তাকর্মীর ‘খারাপ আচরণের’ প্রতিশোধ নিতেই হামলা

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০০:০৯ ২৫ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ০০:১০ ২৫ জানুয়ারি ২০২১

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

নিরাপত্তাকর্মীর ‘খারাপ আচরণের’ প্রতিশোধ নিতে বগুড়ায় ব্যাংকের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে বলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে এক কিশোর।

গ্রেফতারের পর শুক্রবার সন্ধ্যায় তাকে বগুড়া জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আসমা মাহমুদের আদালতে তোলা হলে সে এ কথা বলে।

আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে ওই কিশোর জানায়, গাবতলীতে সে তার বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায়। ১৮ সেপ্টেম্বর বিদ্যুতের বিল দিতে রূপালী ব্যাংকের সাবেকপাড়া শাখায় যায় সে। ওই সময় ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী তার সঙ্গে ‘খারাপ আচরণ’ করে। সেই ঘটনার শোধ নিতে নিরাপত্তাকর্মীর পাশের ঘরের জানালা দিয়ে আগুন দেয় সে।

স্বীকারোক্তিতে ওই কিশোর বলেছে, আগুনে কিছু না হওয়ায় অ্যাডভেঞ্চারাস হয়ে যাই। ৪ জানুয়ারি সন্ধ্যায় মোবাইল বন্ধ করে ব্যাংকের ছাদে উঠি। সেখানে অপেক্ষা করতে থাকি। রাত তিনটায় ব্যাংকের ফটকের তালা কেটে ফেলি। দ্বিধা দ্বন্দ্বে পড়ে যাই, ভেতরে ঢুকব কিনা!।ভোর পাঁচটা ৩৭ মিনিটে নিচের ফটকের তালা কেটে ভিতরে প্রবেশ করে একজন নিরাপত্তকর্মীর চোখে নাইট্রোজেন জেল ঢেলে দেই। এরপর মেঝে পিচ্ছিল করতে অ্যাসিটোনাল অ্যালকাইন ঢেলে দেই। একজন নিরাপত্তাকর্মীকে কান ধরে ওঠবস করাই।

সে আরো বলে, একজনের হাত বাঁধতে গেলে অন্যজন পালানোর চেষ্টা করে। তাকে ধরে মেঝেতে শুইয়ে রাখি। অন্যজনের হাত বাঁধার সময় একজন দৌড়ে গিয়ে ব্যাংকের ফটক লাগিয়ে দেন। এরপর তার সঙ্গে ধস্তাধস্তির সময় হাত বাঁধা লোকটি আমাকে ছুরিকাঘাত করে। আমি ছুরি কেড়ে নিয়ে তাদের একজনকে আহত করে ব্যাংকের ছাদ দিয়ে লাফিয়ে পালিয়ে আসি। তালাকাটা যন্ত্রটি বাবু মেশিনারিজ নামে একটি দোকান থেকে কেনা।

বগুড়ার একটি বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে ওই কিশোর। পিএসসি ও জেএসসিতে সে গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছে। বগুড়া সদরের পীরগাছা বাজারে ওই কিশোরের বাবা সানাউলের একটি কাপড়ের দোকান রয়েছে।

তার বাবা  বলেন, আমার ছেলে আমাদের সঙ্গে সব শেয়ার করত। পড়াশোনায় খুব আগ্রহ ছিল। বিভিন্ন বিষয়ে তার জানার আগ্রহ ছিল। তার মধ্যে কখনো অস্বাভাবিক কিছু দেখিনি। সে ইন্টারনেট থেকে কোনো টাকাও আয় করেনি। একটি মাত্র ল্যাপটপ ব্যবহার করত। কিছুদিন আগে একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন কিনে দিয়েছি।

তিনি আরো বলেন, আমার ছেলের বাসায় নিজস্ব ইন্টারনেট লাইন ছিল না। পাশের বাড়ির একজনের ইন্টারনেট ফোনে শেয়ার করে ব্যবহার করত। সেই লাইনও গত জানুয়ারি থেকে বিচ্ছিন্ন।

গাবতলী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সাবিনা ইয়াসমিন জানান, ৫ জানুয়ারি বগুড়ায় সিসিটিভি ক্যামেরার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রূপালী ব্যাংকে চুরির চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে দুই আনসার সদস্যকে অ্যাসিড নিক্ষেপ করে ওই কিশোর। গাবতলী উপজেলার রূপালী ব্যাংকের পীরগাছা শাখায় এ ঘটনার ১৮ দিন পর শুক্রবার ভোরে গাজীপুরের টঙ্গী থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর