হঠাৎ আগুনের ফুলকি, যাত্রীদের চিৎকারে ট্রেন থামালেন চালক

হঠাৎ আগুনের ফুলকি, যাত্রীদের চিৎকারে ট্রেন থামালেন চালক

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০০:১০ ২১ জানুয়ারি ২০২১  

উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন

উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন

স্টেশনে যাত্রা বিরতি শেষে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা করে ট্রেন। কিছুদূর যাওয়ার পর হঠাৎ ট্রেনের চাকায় আগুনের ফুলকি দেখে চিৎকার দেন যাত্রীরা। তাদের চিৎকারে ট্রেন থামান চালক। ত্রুটি সারাতে ট্রেনটি ফের স্টেশনে ফেরত যায়। এক ঘণ্টা পর ট্রেনটি ছেড়ে যায় নিজ গন্তব্যে।

বুধবার বিকেলে কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলস্টেশনে নোয়াখালীগামী আন্তঃনগর উপকূল এক্সপ্রেসে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি চালকের নজরে আসায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছেন যাত্রীরা।

ভৈরব স্টেশন সূত্রে জানা যায়, বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে ঢাকা থেকে নেয়াখালীর উদ্দেশ্যে উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনটি ছেড়ে আসে। সোয়া ৫টার দিকে ভৈরব স্টেশনে যাত্রা বিরতি করে। পাঁচ মিনিট বিরতির পর ট্রেনটি গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। স্টেশনের আউটার সিগন্যালের কাছে পৌঁছাতেই ট্রেনের চাকায় আগুনের ফুলকি দেখেন যাত্রীরা। এ সময় যাত্রীদের চিৎকারে ট্রেন থামান চালক। পরে পুনরায় ট্রেনটিকে স্টেশনে নিয়ে আসেন তিনি।

ভৈরব স্টেশন মাস্টার একেএম কামরুজ্জামান জানান, ট্রেনটি ঢাকা থেকে স্বাভাবিকভাবেই ভৈরব স্টেশন পর্যন্ত পৌঁছায়। স্টেশন থেকে ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার পর চাকায় আগুনের ফুলকি দেখা দেয়। পরে ট্রেনটি স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসেন চালক। এরপর ত্রুটি ঠিক করে ৬টা ২০ মিনিটে ফের গন্তব্যে ছেড়ে যায়।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি মো. ফেরদাউস আহমেদ বিশ্বাস বলেন, যাত্রীদের নিরাপত্তা দিতে রেলওয়ে পুলিশ ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীসহ স্টেশনের বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর