সন্তানের লাশ আনার আড়াই লাখ টাকা জোগাড় করতে পাগলের মতো ঘুরছে বাবা-মা

সন্তানের লাশ আনার আড়াই লাখ টাকা জোগাড় করতে পাগলের মতো ঘুরছে বাবা-মা

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৩৭ ১৬ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৭:৩৭ ১৬ জানুয়ারি ২০২১

রমেজ-ফাইল ফটো

রমেজ-ফাইল ফটো

অসুস্থতা নিয়ে সৌদি আরবে মারা গেছেন পাবনার চাটমোহর উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের রামেজ মন্ডল। তার লাশ দেশে আনতে চায় পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু রামেজের লাশ আনতে আড়াই লাখ টাকা প্রয়োজন বলে পরিবারের সদস্যদের জানিয়েছেন সৌদি প্রবাসী তাদের এক আত্মীয়। এরপর থেকে সন্তানের লাশ আনার ব্যবস্থা করতে পাগলের মতো ঘুরছে রমেজের বাবা-মা। 

জানা যায়, ঋণ করে প্রায় চার বছর আগে সৌদি আরবে পাড়ি জমিয়েছিলেন ২৮ বয়সী রাজেম মন্ডল। সেখানে গিয়ে একটি প্লাস্টিক কারখানায় কাজ করতেন তিনি। গত মঙ্গলবার বুকে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন রামেজ। পরদিন বুধবার রিয়াদের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

রামেজের মৃত্যুর খবর বাবা মায়ের কাছে পৌঁছে দেন সৌদি প্রবাসী তাদের এক আত্মীয়। একই সঙ্গে তার লাশ দেশে আনতে আড়াই লাখ টাকা প্রয়োজন বলেও পরিবারকে জানান তিনি।

নিহতের চাচা হাফিজ উদ্দিন জানান, জীবিকার সন্ধানে গত চার বছর আগে রাজেম অনেক টাকা দিয়ে সৌদির রাজধানী রিয়াদে পাড়ি জমান। এখনো ঋণ পরিশোধ হয়নি। এমন পরিস্থিতিতে তার লাশ আনতে শুনছি আড়াই লাখ টাকা লাগবে। এতো টাকা তো এই পরিবার কোনোভাবেই দিতে পারবে না।

চাটমোহরের ইউএনও মো. সৈকত ইসলাম বলেন, একজন প্রবাসী মারা গেছেন, এটা অত্যন্ত দুঃখজনক সংবাদ। তার মরদেহ দেশে আনতে কেন টাকা প্রয়োজন হবে বিষয়টি আমার বোধগম্য নয়। আমি জেলা সদরে অবস্থিত প্রবাসী কল্যাণ অধিদফতরে যোগাযোগ করবো বিষয়টি নিয়ে। এ ছাড়া উপজেলা পরিষদ পরিবারটিকে সহযোগিতা করবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ