টাকার জোরে পদ বাগিয়ে নেন বিজয়নগরের ছাত্রদল নেতা মোর্শেদ 

টাকার জোরে পদ বাগিয়ে নেন বিজয়নগরের ছাত্রদল নেতা মোর্শেদ 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:২০ ৪ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ২২:৩২ ৪ ডিসেম্বর ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

টাকার জোরে পদ বাগিয়ে এলাকা থেকে উধাও হয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদ কামাল। দায়িত্ব পালন না করে এই ছাত্রদল নেতা ঢাকায় বসে নিজস্ব ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করছেন। কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতাদের সঙ্গে বিশেষ সখ্যতা থাকার কারণে তিনি ঢাকায় থেকেই রাজনীতি করছেন। স্থানীয় ছাত্রদল নেতাদের অভিযোগ সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় এখন তিনি আবার দৌড়-ঝাঁপ শুরু করেছেন সভাপতির পদ বাগিয়ে নিতে। এ নিয়ে বিজয়নগরে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে চলছে তোলপাড়। মোর্শেদ কামাল ঢাকায় ট্রাভেল এজেন্সির ব্যবসা করেন। ‘মেসার্স গ্লোবাল এডুকেশন কন্সালটেন্সি’ নামে তার একটি ট্রাভেল এজেন্সি রয়েছে। আছে একটি সেলুনও। 

জেলা ছাত্রদলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ২০১৬ সালের ২২ জুন জাবেদ আহাম্মেদ জয়কে সভাপতি ও মোর্শেদ কামালকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯১ সদস্য বিশিষ্ট বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হয়েছিল। ওই কমিটিতে ঢাকার ব্যবসায়ী মোর্শেদ কামালকে সাধারণ সম্পাদক করায় কমিটিকে ‘ঢাকাইয়া কমিটি’ আখ্যায়িত করে কমিটির ২৫ জন সদস্য পদত্যাগ করেছিলেন। এই সংবাদ তৎকালীন সময়ে একাধিক জাতীয় পত্রিকায় ছাপা হয়েছিল। পরে সিনিয়র নেতাদের হস্তক্ষেপ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও ওই কমিটি রাজনীতিতে কোনো ভূমিকা রাখতে পারেনি। সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদ কামাল এলাকায় না আসায় কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি পালিত হয়নি।

নেতা-কর্মীদের অভিযোগ সেই কমিটি মেয়াদোর্ত্তীর্ণ হওয়ায় মোর্শেদ কামাল আবার কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতাদেরকে বিশেষ পন্থায় ম্যানেজ করে বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি হওয়ার চেষ্টা করছেন।

উপজেলার পাহাড়পুর ইউপির ছাত্রদলের সভাপতি পারভেজ ফকির ও উপজেলা ছাত্রদল নেতা সাইফুল ইসলামসহ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রদলের একাধিক নেতা বলেন, মোর্শেদ কামাল অনেক টাকার মালিক। টাকার জোরেই তিনি এলাকায় রাজনীতি না করে ঢাকায় বসে পদ ভাগিয়ে নেন। এসব মোর্শেদ কামালদের জন্যই বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রদলের রাজনীতি আজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। এবারো যদি মোর্শেদ কামাল টাকার জোরে সভাপতি নির্বাচিত হন তাহলে বিজয়নগরে ছাত্রদল ধ্বংস হয়ে যাবে।

বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি প্রার্থী তৌফিকুল ইসলাম ভূইয়া বলেন, মোর্শেদ কামাল ঢাকা থেকেই টাকার জোরে গত কমিটির সাধারণ সম্পাদক হয়েছিলেন। এবারও ঢাকায় বসে আগের পন্থায় আবার সভাপতি হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। ঢাকায় ব্যবসা-বাণিজ্য করেই যদি বড় বড় পদ পদবি পাওয়া যায় তাহলে আমরা তৃণমূলে কেন রাজনীতি করব?

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সমীর চক্রবর্তী বলেন, মোর্শেদ কামাল বিগত কমিটির সাধারণ সম্পাদক থাকা কালে ঢাকায় বসে রাজনীতি করেছেন। একটি বারের জন্য এলাকায় আসেননি। এখন আবার ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয় নেতাদের দিয়ে আমাদের উপর চাপ সৃষ্টি করছে তাকে আবার সভাপতি করার জন্য।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শেখ হাফিজউল্লাহ বলেন, আমরা চাচ্ছি দলের ত্যাগী ও সক্রিয় নেতা-কর্মীদের দিয়ে কমিটি দিতে। যারা এলাকায় অবস্থান করে রাজনীতি করে তাদের দিয়েই নতুন কমিটি করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/টিআরএইচ/আরএইচ/এমকে