রাগ করে বউ গেল বাপের বাড়ি, দলবল নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের হামলা

রাগ করে বউ গেল বাপের বাড়ি, দলবল নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের হামলা

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৪৫ ৪ ডিসেম্বর ২০২০  

মাদকাসক্ত জামাইয়ের হামলায় আহত শাশুড়ি

মাদকাসক্ত জামাইয়ের হামলায় আহত শাশুড়ি

নরসিংদীর বেলাবতে দলবল নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে মাদকাসক্ত জামাই। তাদের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন শ্বশুর মো. শাহজাহান, শাশুড়ি আনোয়ারা, শ্যালিকা মাছুমা এবং শ্যালক বোরহান উদ্দিন।

গত বুধবার উপজেলার পাটুলি ইউনিয়নের সুটুরিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

অভিযুক্ত জামাই একই গ্রামের ইন্নছ আলীর ছেলে বাচ্চু মিয়া। খবর পেয়ে বেলাব থানা পুলিশ আহতদের অবরুদ্ধ অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে বেলাব থানায় লিখিত অভিযোপ দিয়েছেন শ্বশুর মো. শাহজাহান। 

অভিযোগে জানা যায়, প্রায় ১৫ বছর আগে শাহজাহানের মেয়ে সামসুন্নাহার শান্তার বিয়ে হয় একই গ্রামের বাচ্চু মিয়ার সঙ্গে। দাম্পত্য জীবনে তাদের দুইটি ছেলে রয়েছে। গত পাঁচ বছর ধরে সে মাদকের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে। প্রায়ই নেশাগ্রস্ত অবস্থায় বাড়িতে এসে স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে। গত দুই বছর ধরে অত্যাচারের মাত্রা বহুগুন বেড়ে যায়। একাধিকবার স্ত্রীর শরীরে ছ্যাঁকা, দাঁত দিয়ে কামড়িয়ে মাংস উঠিয়ে ফেলাসহ মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালিয়ে আসছে বাচ্চু। 

এসব ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এবং বেলাব থানায় একাধিক সালিশ হয়েছে। কিন্তু বাচ্চুর পরিবর্তন হয়নি। এসব কারণে শান্তা কয়েকবার রাগ করে বাপের বাড়িতে চলে আসলেও সামাজিক চাপে তাকে স্বামীর বাড়িতে যেতে হয়েছে।

কয়েকদিন আগে বাচ্চু মিয়া নেশাগ্রস্ত অবস্থায় স্ত্রী শান্তার ওপর নির্যাতন চালিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিলে সে বাপের বাড়িতে চলে আসে। এতে বাচ্চু মিয়া গত বুধবার দুপুরে তার সহযোগী মিঠু মিয়া, জামাল মিয়া, গুলু মিয়া, সুমন মিয়াসহ দলবল নিয়ে দেশীয় অস্ত্র হাতে শ্বশুরবাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় স্ত্রী শান্তাকে বাড়িতে না পেয়ে অশ্লীল ভাষায় গালাগাল শুরু করে। প্রতিবাদ করলে ক্ষুব্ধ বাচ্চু মিয়া শাশুড়িকে লাঠি দিয়ে মাথায় এবং শরীরের অন্যান্য স্থানে আঘাত করে। 

এ সময় পরিবারের অন্যরা এগিয়ে এলে তাদেরকেও বেদম মারপিট আহত অবস্থায় ফেলে রেখে টাকা, স্বর্ণালংকার এবং মূল্যবান জিনিসপত্র লুটে নেয়। পরে তাদেরকে অবরুদ্ধ করে রাখে হামলাকারীরা। পরে পুলিশের জরুরি বিভাগে ফোন করলে বেলাব থানা পুলিশ গিয়ে তাদেরকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে এবং আত্মীয়দের সহযোগীতায় মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। 

বেলাব থানার ওসি সাফায়েত হোসেন পলাশ জানান, ঘটনা জানার পর পুলিশ পাঠিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ