তরুণ-তরুণীরাই এগিয়ে নেবে দেশ

তরুণ-তরুণীরাই এগিয়ে নেবে দেশ

শফিক খোকন, পাথরঘাটা ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:০৯ ২ ডিসেম্বর ২০২০  

হাতে বানানো বিদ্যালয়

হাতে বানানো বিদ্যালয়

সাদা, সবুজসহ ড্রেস পরে স্টলগুলোতে নিজেদের উদ্ভাবন করা বিভিন্ন পণ্য নড়াচড়া করছেন তরুণ-তরুণীরা। আবার কেউ কেউ আবিষ্কৃত যন্ত্র ও নানা ধরনের জিনিসপত্র প্রদর্শনে ব্যস্ত। অনেকে দর্শকদের দেখাচ্ছেন। সোমবার দিনব্যাপী এভাবেই ব্যস্ত সময় পার করেছেন বরগুনার পাথরঘাটার ১৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তরুণ-তরুণীরা।

উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পাথরঘাটা কেএম পাইলট মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয়ের হলরুমে ৪২তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ-২০২০ উদ্বোধনীতে উপস্থিত ছিলেন পাথরঘাটা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কবির, ইউএনও সাবরিনা সুলতানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাবির হোসেন, একাডেমিক সুপারভাইজার মনিরুজ্জামান, প্রধান শিক্ষক নুরুল আলম প্রমুখ।

স্মার্ট ভিলেজ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে উদ্ভাবনী মেলায় তরুণ-তরুণীরা ১৪টি স্টলে প্রদর্শন করেছেন স্মার্ট ভিলেজ, রিমোর্ট কন্ট্রোল যুদ্ধজাহাজ, সৌরচালিত যুদ্ধজাহাজ, এক্সক্যাভেটর, পলিথিন ও প্লাস্টিক থেকে পেট্রল উৎপাদন, প্রাকৃতিক উপায়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, রোবট, বিকল্প পদ্ধতিতে জ্বালানি তৈরি, করোনাভাইরাস এলার্ম।

কথা হয় রিমোর্ট কন্ট্রোল যুদ্ধজাহাজ উদ্ভাবক চরদুয়ানি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আল নোমান, দুর্জয় তালুকদার, প্রিন্স রায় ও পারভেজ ইসলামের সঙ্গে।

তারা বলেন, বিশ্বে রিমোর্ট কন্ট্রোল যুদ্ধজাহাজ আছে কিনা জানি না। কিন্তু এমন জাহাজ প্রয়োজন বলে আমরা মনে করছি। এ জাহাজটি সব কিছুই নিয়ন্ত্রণ করবে রিমোর্টের মাধ্যমে।

পলিথিন ও প্লাস্টিক থেকে পেট্রল উৎপাদন

ছাদে আধুনিক পদ্ধতিতে জৈব সারের মাধ্যমে কৃষি চাষের উদ্ভাবক চৌধুরী কৃষি প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী শেখর ব্যাপারী, শারমিন ও মিলা আক্তারের সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, ক্রমান্বয়ে জনসংখ্যা বাড়ায় গ্রামে কৃষি জমি কমে যাচ্ছে। ফলে ছাদ কৃষির ওপর নির্ভরশীল হচ্ছেন অনেকে। এছাড়া কীটনাশক ব্যবহার করে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। এ কারণে জৈব সার ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতেই আমরা একটি কৃত্রিম বহুতল ভবন তৈরি করে প্রদর্শন করেছি।

পাথরঘাটার ইউএনও সাবরিনা সুলতানা বলেন, তরুণ-তরুণীরাই দেশ এগিয়ে নেবে। শিশুদের প্রতিভা বিকাশে বিজ্ঞান মেলা অন্যতম পথ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর