আপত্তিকর অবস্থায় আটক সেই প্রেমিক-প্রেমিকার বিষয়ে কোনো সুরাহা হয়নি

আপত্তিকর অবস্থায় আটক সেই প্রেমিক-প্রেমিকার বিষয়ে কোনো সুরাহা হয়নি

জামালপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২৩:১২ ৩০ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৫:৪৭ ১ ডিসেম্বর ২০২০

স্থানীয়দের হাতে আটক হওয়া প্রেমিক-প্রেমিকা

স্থানীয়দের হাতে আটক হওয়া প্রেমিক-প্রেমিকা

গভীর রাতে আপত্তিকর অবস্থায় আটকের দুইদিন পার হলেও সেই প্রেমিক-প্রেমিকার বিষয়ে এখনো কোনো সুরাহা হয়নি। এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযাগও করা হয়নি। ফলে বাধ্য হয়েই মেয়ে এখনো ছেলের বাড়িতে অবস্থান করছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ঘটনায় ওই কলেজছাত্রী বলেন, আমার সঙ্গে রনির ৪ বছরের প্রেমের সম্পর্ক। সম্পর্ক হওয়ার পর থেকে আমরা কাছে যাওয়া আসা করি। ঘটনার দিন রাতে আমার সঙ্গে প্রতিদিনের মতোই ফোনে কথা হয়। কথার একপর্যায়ে সে আমাকে বাগানে দেখা করতে বলে। আমি তার সঙ্গে দেখা করতে গেলে বাড়ির পাশের গরুর খামার মালিক মিয়ন ও তার সঙ্গে কয়েকজন আমাদের দু’জনকে ধরে ফেলে।

আরো পড়ুন: রাতে দেখা করতে গিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় প্রেমিক-প্রেমিকা ধরা

মেয়েটির বাবা জানান, এখন পর্যন্ত আমি মেয়ের খোঁজ পাইনি। তার সঙ্গে একাধিকবার মোবাইল ফোনে কথা বলার চেষ্টা করেছি কিন্তু পাওয়া যায়নি। আমি এখনো থানায় কোনো অভিযোগ করিনি। মেয়েটিকে ওরা জিম্মি করে রেখেছে। আমি চাই তাদের বিয়ে হোক। তবে আজকে মীমাংসার জন্য বসার কথা। মীমাংসা না হলে আমি আইনের আশ্রয় নিবো।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, হাজরাবাড়ী অনার্স কলেজের স্নাতক প্রথম বর্ষের ছাত্র দেলোয়ার হোসেন রনির সঙ্গে মেলান্দহের মালঞ্চ মহিলা মাদরাসার একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর ৪ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। রোববার রাত ২টায় দেলোয়ার হোসেন রনি বংশী বেলতৈল এলাকায় ওই ছাত্রীর বাড়ির কাছেই একটি বাগানে আপত্তিকর অবস্থায় তাদের দু’জনকে স্থানীয় কয়েকজন হাতেনাতে ধরে ফেলে। ছেলের পরিবার বিয়ের কথা বলে মেয়ের আত্মীয়ের বাড়ি থেকে রনিকে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেন।

এ বিষয়ে মেলান্দহ থানার ওসি এমএম ময়নুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে থানায় এখনো কোনো অভিযোগ আসেনি। মেয়ের পক্ষে কেউ থানায় এসে অভিযোগ করলে আমরা ব্যবস্থা নেব।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/জেডএম