স্বার্থ নিয়ে ব্যস্ত ভোলা বিএনপি

স্বার্থ নিয়ে ব্যস্ত ভোলা বিএনপি

ভোলা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:১৪ ২৬ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৬:৫৫ ২৬ অক্টোবর ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ভোলায় ব্যক্তি স্বার্থে চলছে বিএনপির কার্যক্রম। এতে দলটির ওপর আস্থা হারাচ্ছে তৃণমূল কর্মীরা। এমনকি করোনা পরিস্থিতিতেও দলের নেতাদের পাওয়া যায়নি। সব মিলিয়ে নেতৃত্ব সংকটে ভুগছে দলটি।

একাধিক নেতা-কর্মী জানান, ভোলায় একটি পরিবারের ওপর নির্ভর করে বিএনপির রাজনীতি চলছে। দলের যেকোনো কার্যক্রম, কমিটি গঠনসহ সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত তারাই নিয়ে থাকে। এছাড়া উপজেলাগুলোতে বিএনপির কার্যক্রম সংসদীয় প্রার্থীর সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভরশীল। একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর অনেকেই এলাকায় আর আসেননি। তৃণমূলের নেতা-কর্মীদেরও তেমন কোনো খোঁজখবর নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক নেতা-কর্মী জানান, বিএনপি বর্তমানে একটা নিষ্ক্রিয় দলে পরিণত হয়েছে। দলের প্রতি কারো কোনো আগ্রহ নেই। দলীয় কার্যক্রমে এখন আর সিনিয়রদের প্রয়োজন হয় না। যাকে দিয়ে স্বার্থ উদ্ধার করা যাবে তাকে দিয়েই দলের সভাপতি কার্যক্রম চালিয়ে নেয়। এ ক্ষেত্রে সিনিয়র নেতারা উপেক্ষিত থেকে যায়। তাই দলকে শক্তিশালী করতে হলে সিনিয়র ত্যাগী মেধাবী নেতাদের মূল্যায়ন করতে হবে।

কলামিস্ট মহিউদ্দিন মাসউদ বলেন, বিএনপির জাতীয় পর্যায়ের রাজনীতিতে দূরদর্শিতার অভাব রয়েছে। এর প্রভাব তৃণমূল পর্যায়ে পড়েছে। ভোলার বিএনপিকে ঘুরে দাঁড়াতে হলে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে হবে। পাশাপাশি নেতা-কর্মীদের সাংগঠনিক চর্চা করতে হবে। দলকে ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহার না করে দলীয়ভাবে কাজ করতে হবে। প্রত্যেক নেতা-কর্মীর যার যার ভূমিকায় কাজ করতে হবে। বর্তমান বিএনপির যে নেতৃত্ব সংকট রয়েছে সেই সংকট উত্তরণে কাজ করাই হবে বড় চ্যালেঞ্জ।

ভোলা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ বলেন, বিএনপি যেহেতু একটি রাজনৈতিক দল তাই এ দলের কর্মী অনেক। বিএনপির মধ্যে মতবিরোধ থাকতেই পারে। তবে দলের স্বার্থে আমরা ঐক্যবদ্ধ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর/এইচএন