দু’দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও হয়নি সড়ক সংস্কার 

দু’দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও হয়নি সড়ক সংস্কার 

জাকারিয়া চৌধুরী, হবিগঞ্জ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:১৯ ২৫ অক্টোবর ২০২০  

দু’দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও সংস্কার হয়নি হবিগঞ্জের বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ

দু’দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও সংস্কার হয়নি হবিগঞ্জের বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ

দু’দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও হয়নি হবিগঞ্জের বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ সড়কের শিবপাশা এলাকায় চার কিলোমিটার অংশের সংস্কার কাজ। এরই মধ্যেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে এ অংশ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ সড়কের চার কিলোমিটার সংস্কারের দাবি ছিলো ব্যবসায়ীসহ স্থানীয়দের। এ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সড়ক দরপত্র আহবান করে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)। এ কাজে ব্যায় ধরা হয়েছিল পৌনে চার কোটি টাকা। টেন্ডারের কাজ পান আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মর্তুজা হাসান। 

পরে কাজটি পেয়ে সংস্কার কাজ শুরু করেন তিনি। চুক্তিপত্র অনুযায়ী গত জুন মাসে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও করোনা ও ধীর গতিতে কাজ চলার জন্য প্রথম দফার মেয়াদ শেষ হয়ে যায় আরো আগেই। পরে দ্বিতীয় দফায় মেয়াদ বাড়ানো হয় আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত। 

সরেজমিনে দেখা গেছে, শিবপাশা বাজার থেকে পশ্চিমভাগ গ্রামের ব্রিজ পর্যন্ত পুরো এলাকাটিই রাস্তায় খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। অনেক স্থানে আবার সৃষ্টি হয়েছে ছোটো-বড় গর্ত। বৃষ্টি এলে ঝুঁকি যেনো আরো বেড়ে যায়। অনেক স্থানে হাঁটু সমান কাদা জমে যায়। এ কারণে দুর্ভোগে পড়েন পথচারীরা। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা জানান, শিবপাশা বানিয়াচং সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে। কাজটি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পাওয়ায় দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। 

হবিগঞ্জ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) শফিকুল ইসলাম শফিক জানান, করোনার কারণে প্রথম দফায় কাজ শেষ করতে দেরি হয়েছে। এরইমধ্যে ঠিকাদার মেয়াদ বাড়িয়েছেন। কাজের অগ্রগতি অনুযায়ী এখনও তার দেড় কোটি টাকার বিল পাওনা রয়েছে। সঠিকভাবে কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত পুরোপুরি বিল দেয়া হবে না। 

এ বিষয়ে জানতে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ঠিকাদার মর্তুজা হাসানের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম