টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত বরগুনার জনজীবন

টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত বরগুনার জনজীবন

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩৫ ২৩ অক্টোবর ২০২০  

পানিবন্দি বরগুনার জনজীবন

পানিবন্দি বরগুনার জনজীবন

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা বরগুনায় টানা বর্ষণ ও উচ্চ জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল। জেলার ৬টি উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ফসলের ক্ষেত, ভেসে গেছে মাছের ঘের। বরগুনা, বেতাগী, পাথরঘাটা,ও আমতলী পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ সড়কের খানাখন্দকে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে জনজীবনে বিপর্যয় নেমে এসেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বরগুনা কার্যালয়ের বৃষ্টিপরিমাপক শাখা থেকে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুক্রবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ২৬০ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। 

এছাড়া জোয়ারের উচ্চতা পরিমাপক শাখা থেকে জানা যায়, শুক্রবার ১২টা পর্যন্ত বিষখালী, বুড়িশ্বর (পায়রা) ও বলেশ্বর নদীতে জোয়ারের পানি বিপদসীমার তিন ফুট উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বরগুনা জেলায় বিভিন্ন বেড়িবাঁধের বাইরে আবাসন ও আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা বৃষ্টি আর জোয়ারের পানিতে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে। 

এছাড়া বেড়িবাঁধের বাইরে কয়েক হাজার বসতঘর বৃষ্টি আর জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে। উপকূলের অনেক বাড়িতে আজ রান্না করার মতো অবস্থা নেই।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বরগুনা পৌর শহরের চরকলোনি, কলেজ সড়ক, কলেজ ব্রাঞ্চ সড়ক, ব্যাংক কলোনি, আমতলা পাড়, বাজার সড়ক, বঙ্গবন্ধু সড়ক, গোলাম সরোয়ার সড়ক, পশু হাসপাতাল সড়কে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। দু'দিনের বেশি অব্যাহত ভারী বর্ষণে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সাধারণ জনজীবনে বিপর্যায় নেমে এসেছে। সবকিছু স্থবির হয়ে পড়েছে। 

বুধবার ভোর থেকে জেলা সদর ও পাথরঘাটা, বেতাগী, বামনা উপজেলায় বিদ্যূৎ আসা-যাওয়া করে শুক্রবার সকাল থেকে বিদ্যূৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে। এছাড়াও জেলার ৬টি উপজেলার নদী তীরবর্তি এলাকায় জলবদ্ধতার পাশাপাশি তলিয়ে গেছে নি¤œাঞ্চল।

বরগুনা পৌর শহরের কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা জয় বলেন, গতকাল থেকেই ভারী বর্ষণের ফলে আমরা পানিবন্দি অবস্থায় আছি। ঘর থেকে বের হয়া যাচ্ছে না। স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় নেমে এসেছে স্থবিরতা।

একই এলাকার আসমা আক্তার বলেন, ঘরের সামনে হাঁটু সমান পানি। ঘর থেকে বের হওয়াই আমাদের জন্য দুষ্কর হয়ে পড়েছে। তার মধ্যে সকাল থেকে বিদ্যুতের দেখা নেই।

এদিকে বরগুনা পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন ব্যক্তিগত উদ্যোগে শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে  বর্ষায় ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবন্দি মানুষের মাঝে আর্থিক সহায়তা ও শুকনো খাবার বিতরণ শুরু করেছেন।

বরগুনা পৌরসভার মেয়র শাহাদত হোসেন বলেন, অনেকে বসতবাড়ি বৃষ্টির পানিতে ডুবে যাওয়ায় তাদেরকে শুকনো খাবার পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বরগুনার ডিসি মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, আবহাওয়ার সংকেত পেয়েই আমরা, ইউএনওদের মাধ্যমে সব ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের নিজ নিজ এলাকার ক্ষয়-ক্ষতির সঠিক তথ্য সংগ্রহ করার জন্য বলেছি। শুকনো খাবার প্রস্তুত করা হচ্ছে, প্রয়োজনে চাহিদা মতো সরবরাহ করা যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ