প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে দশ বছরের শিশুকে ২৫ বছর দেখিয়ে ধর্ষণ মামলা

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে দশ বছরের শিশুকে ২৫ বছর দেখিয়ে ধর্ষণ মামলা

ভোলা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৩৫ ২০ অক্টোবর ২০২০  

অভিযুক্ত শিশু, তার বাবা ও ভাই

অভিযুক্ত শিশু, তার বাবা ও ভাই

১০ বছরের এক শিশুর বয়স ২৫ বছর দেখিয়ে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছেন ২২ বছরের এক বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তরুণী। এছাড়াও ওই শিশুর বাবা ও বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগ করা হয়েছে। তবে শিশুর পরিবারের দাবি ঘরবাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে স্থানীয় ভূমিদস্যুরা এ ষড়যন্ত্র করছে।

চরফ্যাশনের চর নুরুল আমিন গ্রামের জেলে আবদুল আলীর ১০ বছরের ছেলে নাইম বাড়ির পাশের একজন মাদরাসাছাত্র। ওই শিশুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক ২২ বছরের তরুণী বাদী হয়ে ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে মামলা করেছেন। 

মামলার এজহারে আসামি শিশুর বয়স উল্লেখ করা হয়েছে ২৫ বছর। আদালত অভিযোগ তদন্তের জন্য পুলিশকে দায়িত্ব দিয়েছেন। শিশুর বাবা মায়ের অভিযোগ, ভূমিদস্যু তছির আহম্মেদ তার গৃহকর্মী প্রতিবন্ধী তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় তাকে দিয়েই মিথ্যা মামলা করিয়েছেন।

আসামি শিশুর বাবা বলেন, আমার বড় ছেলে, ছোট ছেলে এবং আমাকে আসামি করা হয়েছে।

শিশুটির মা বলেন, আমার শিশুরে শত্রুতা করে মামলা দিছে আমি এর বিচার চাই।

স্থানীয়রা বলছেন, জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে নাবালক ছেলেকে মামলায় জড়ানো হয়েছে। তবে আদালতে করা অভিযোগটি তদন্তে প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত পরিবারকে সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন ভোলার এসপি সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

জানা গেছে, তছির আহম্মেদের সঙ্গে অভিযুক্তদের ২২ শতাংশ জমি নিয়ে দেওয়ানি আদালতে মামলা চলছে।

আর ওই গৃহকর্মী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় ডেলিভারির পরে ডিএনএ টেস্ট করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন বলে এসপি জানিয়েছেন। তবে এর আগে শিশুর পরিবার যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেটি নিশ্চিত করবে পুলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস