ভালো কাজে কমল সাজা, মুক্ত হয়েই পেলেন ১২ হাজার টাকা   

ভালো কাজে কমল সাজা, মুক্ত হয়েই পেলেন ১২ হাজার টাকা   

মেহেরপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০১:৪৭ ২০ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ০২:০৮ ২০ অক্টোবর ২০২০

ফিরাতুল ইসলামের হাতে টাকা তুলে দিচ্ছেন মেহেরপুর সমাজ সেবা অধিদফতরের উদ্যোগে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তুষার কুমার পাল

ফিরাতুল ইসলামের হাতে টাকা তুলে দিচ্ছেন মেহেরপুর সমাজ সেবা অধিদফতরের উদ্যোগে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তুষার কুমার পাল

বিস্ফোরক মামলায় ২০ বছরের সাজপ্রাপ্ত হয়েও জেলেখানায় ছিল ফিরাতুল ইসলামের ভালো আচরণ। তাই কারা কর্তৃপক্ষ তার সাজার মেয়াদ পাঁচ বছর কমিয়ে ১৫ বছর করে। ঘটনা এখানেই শেষ নয়, ফিরাতুল জেলখানা থেকে বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জেলগেটেই তাকে মেহেরপুর সমাজ সেবা অধিদফতরের উদ্যোগে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তুষার কুমার পাল উপস্থিত থেকে ফেরাতুলের হাতে ১২ হাজার টাকা তুলে দেন। একইসঙ্গে মেহেরপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষে থেকে তাকে ঘর করে দেয়ারও প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়।

এ সময় জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক সাইদুর রহমান, প্রফেশনাল অফিসার সাজ্জাদ হোসেন, জেল সুপার মোখলেসুর রহমান সেখানে উপস্থিত ছিলেন। 

ফেরাতুল ইসলাম মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের ইংরেজ আলীর ছেলে। একটি বিস্ফোরণের মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় ফেরাতুলকে ২০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল।

জেল সুপার মোখলেসুর রহমান জানান,  ফেরাতুল ২০ বছর সাজা হলেও কারাগারে ভালো কাজ করায় তার সাজা ৫ বছর কমিয়ে ১৫ বছর পর মুক্তি দেয়া হয়েছে।

সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক সাইদুর রহমান, প্রফেশনাল অফিসার সাজ্জাদ হোসেন জানান, ফেরাতুল ইসলামকে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে। 

সোমবার সন্ধ্যায় ফেরাতুল মেহেরপুর কারাগার থেকে মুক্তি পান। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ