কুড়িগ্রামে বন্যা-নদীভাঙন কবলিতরা পাচ্ছে ২৪০ ঘর

কুড়িগ্রামে বন্যা-নদীভাঙন কবলিতরা পাচ্ছে ২৪০ ঘর

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:২১ ১৯ অক্টোবর ২০২০  

কুড়িগ্রামের বন্যা ও নদীভাঙনে গৃহহীনদের জন্য সাড়ে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হাতিয়া বকসী আশ্রয়ণ প্রকল্প

কুড়িগ্রামের বন্যা ও নদীভাঙনে গৃহহীনদের জন্য সাড়ে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হাতিয়া বকসী আশ্রয়ণ প্রকল্প

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার প্রকল্পের আওতায় প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বন্যা ও নদীভাঙনে গৃহহীনদের জন্য বাস্তবায়ন করা হয়েছে কুড়িগ্রামের হাতিয়া বকসী আশ্রয়ণ প্রকল্প। এ প্রকল্পের আওতায় সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নির্মিত ২৪০টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে।

রোববার চিলমারী উপজেলার নয়ারহাটে ইউপির ব্রহ্মপুত্র নদের অববাহিকার চরফেসকা বাবদ হাতিয়া বকসীর চরে প্রকল্পের ২৪০টি ঘর উপজেলা প্রশাসনের নিকট হস্তান্তর করেন ৬৬ পদাতিক ডিভিশনের পক্ষে লেফটেন্যান্ট কর্নেল রাজিবুল আবেদিন। এ সময় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধরা উপস্থিত ছিলেন।

এ আশ্রয়ণ প্রকল্পে ৪৮টি ইউনিট রয়েছে। প্রতিটি ইউনিটে ৫টি করে পরিবার বসবাস করতে পারবে। সেখানে তাদের জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানি, স্যানিটেশন, শিশুদের জন্য খেলার মাঠসহ বিভিন্ন সুযোগ- সুবিধা রয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হওয়ায় ব্রহ্মপুত্র নদের অববাহিকার নয়ারহাট ইউপির বন্যা-নদীভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত ২৪০টি পরিবার মাথা গোঁজার ঠাঁই পাবে। উপজেলা প্রশাসন তালিকা করে এসব ঘর বিতরণ করবে।

এ বিষয়ে লেফটেন্যান্ট কর্নেল রাজিবুল আবেদিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন প্রতিটি গৃহহীন মানুষকে বাসস্থানের ব্যবস্থা করে দেয়া। গৃহহীনদের জন্য তৈরি এ প্রকল্পের অর্থ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকেই ছাড় দেয়া হয়। গত দুই মাসে এ প্রকল্পের ৪৮টি ইউনিটে ২৪০টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। রোববার ঘরগুলো উপজেলা প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করা হলো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রীর এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে অংশীদার হতে পেরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী গর্বিত।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর