মাদারীপুরে প্রলোভনে তিনবার শারীরিক সম্পর্ক, বিয়ে করতে বলায় মারধর

মাদারীপুরে প্রলোভনে তিনবার শারীরিক সম্পর্ক, বিয়ে করতে বলায় মারধর

মাদারীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:৪০ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

কালকিনি থানা, মাদারীপুর

কালকিনি থানা, মাদারীপুর

মাদারীপুরের কালকিনিতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুলছাত্রীর সঙ্গে তিনবার শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের পর বিয়েতে অস্বীকৃতি জানানোর অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দিতে উঠেপড়ে লেগেছে একটি প্রভাবশালী মহল।

মঙ্গলবার দুপুরে আইনি সহায়তার জন্য থানায় হাজির হয়েছে ভুক্তভোগী ছাত্রীর পরিবার।

জানা গেছে, ওই উপজেলার দক্ষিণ রমজানপুরের রমেশ মণ্ডলের ছেলে সুমন মণ্ডলের সঙ্গে ওই ছাত্রীর দীর্ঘদিনের প্রেম। সুমন মণ্ডল তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক আত্মীয়ের বাড়ি নিয়ে তিনদিন রেখে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে। এরপর তাকে একা ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে নিরুপায় হয়ে সুমনের বাড়িতে গিয়ে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেয় ওই স্কুলছাত্রী। ওই সময় তাকে মারধর করে সুমন মণ্ডলের পরিবার।

ভুক্তভোগী ছাত্রীর পরিবার জানায়, বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য অভিযুক্ত সুমনের পক্ষ নিয়ে রবি মণ্ডল, সাবেক ইউপি মেম্বার কামরুল ব্যাপারী, নিখিল ভক্তসহ কয়েকজন প্রভাবশালী ওই ছাত্রীর পরিবারকে চাপ দিচ্ছে। তবে ঘটনার পর থেকেই সুমন মণ্ডল পলাতক রয়েছে।

ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বলেন, সুমন আমার মেয়ের সর্বনাশ করেছে। বিয়ের কথা বলায় তাকে মারধরও করেছে। এখন প্রভাবশালীদের দিয়ে চাপ প্রয়োগ করছে। আমি সুমন মণ্ডল ও তার পরিবারের বিচার চাই।

অভিযুক্ত সুমন মণ্ডলের বাবা রমেশ মণ্ডল বলেন, আমি কিছুই জানি না।

কালকিনি থানার ওসি মো. নাসির উদ্দিন মৃধা বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। তবে ঘটনাটি ঘটেছে গৌরনদী থানার মধ্যে তাই মামলা সেখানেই করতে হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর