এক টাকার জন্য হত্যা: মেয়ের প্রশ্ন ‘কে বানাবে আমাকে ডাক্তার?’

এক টাকার জন্য হত্যা: মেয়ের প্রশ্ন ‘কে বানাবে আমাকে ডাক্তার?’

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৫২ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:০০ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

নিহত জসিম উদ্দীন (বামে), ডানে মানববন্ধনে তার মেয়ে। ছবি: সংগৃহীত

নিহত জসিম উদ্দীন (বামে), ডানে মানববন্ধনে তার মেয়ে। ছবি: সংগৃহীত

মাত্র এক টাকা নিয়ে বাকবিতণ্ডা, এরপর বাস থেকে যাত্রীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বাসের হেলপার। হাসপাতালে নেয়ার পরই মৃত্যু হয় জসিম উদ্দীন নামের সেই যাত্রীর। চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ে শুক্রবার রাতে এমনই এক ঘটনা ঘটেছে। এরপরই নগরীর মানুষ ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে।

মঙ্গলবার সকালে নগরীর জিইসি মোড়ে বেপরোয়া হেলপার ও চালকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করা হয়। এতে নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসীসহ অংশ নেন শত শত মানুষ। এ সময় এমন বর্বর ঘটনা যেন আর না ঘটে তার জোর দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে নিহত জসিমের মেয়ে অনামিকা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমাদের এখন কী হবে? বাবাকে তারা মেরেই ফেললো। আমার বাবার স্বপ্ন ছিল আমি ডাক্তার হবে, এখন কে বানাবে আমাকে ডাক্তার?’

অনামিকার চোখে এখন কেবলই অন্ধকার ভবিষ্যতের ছায়া। পরিবারের অন্য সদস্যরাও দিশেহারা। নিহত জসিমের স্ত্রী বলেন, আমার স্বামীর মৃত্যুর সঙ্গে যারা জড়িত সবাইকে ফাঁসি দেয়া হোক।

এদিকে পুলিশ জানায়, শুক্রবার রাতে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ থেকে বহদ্দারহাট যাওয়ার সময় চালকের সহকারীর সঙ্গে ভাড়া নিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়েন জসিম উদ্দিন। একপর্যায়ে দু'জনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হলে সহকারীর সঙ্গে চালক রাকিবও যোগ দেন। একপর্যায়ে জসিমকে গাড়ি থেকে লাথি দিয়ে ফেলে দিলে গুরুতর আহত হন জসিম। আহত অবস্থায় নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানেই শনিবার রাতে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় জসিমের পরিবার খুলশী থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

আরো পড়ুন: এক টাকা ফেরত চাওয়ায় লাথি দিয়ে ফেলে দিল যাত্রীকে, হাসপাতালে মৃত্যু

নিহত জসিম পটিয়ার দক্ষিণ ছনহরা গ্রামের আলী নবীর ছেলে এবং নগরীর আগ্রাবাদ এলাকায় এইচএনএস অটোমোবাইলের ডেপুটি ম্যানেজার পদে কর্মরত ছিলেন তিনি।

এদিকে, এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে বাসটিকে আটক এবং বাসচালক রাকিব ও তার সহকারী আরিফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর বাসচালক ও তার সহকারী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

গ্রেফতারের পর বাসটির হেলপার আরিফ পুলিশকে প্রাথমিকভাবে দেওয়া স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছে, ঘটনার দিন রাতে জসিম উদ্দিন আগ্রাবাদ থেকে বহদ্দারহাট যাচ্ছিলেন। এসময় জিইসি পৌঁছালে তিনি আরিফকে ১২ টাকা ভাড়া দেন। তার ভাড়া ছিলে ৭ টাকা। ৫ টাকা ফেরত পাওয়ার প্রত্যাশায় তিনি হেল্পারকে ১২ টাকা দেন। কিন্তু হেল্পার তাকে ৪ টাকা ফেরত দেয়। ১ টাকা কম হওয়ায় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারামারির ঘটনা ঘটে। পরে হেলপার আরিফ জসিম উদ্দিনকে লাথি মেরে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেন। এতে জসিম মাথায় প্রচণ্ড আঘাত পান।

খুলশী থানার ওসি মো. শাহিনুজ্জামান স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, জসিম আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাকালেই তাদের বিরুদ্ধে একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এখন যেহেতু জসিম উদ্দিন মারা গেছেন সেহেতু এটিকে হত্যা মামলা হিসেবে গ্রহণ করার আইনগত পদক্ষেপ নিচ্ছি আমরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে