স্থানীয়দের সিএনজি আটকিয়ে রোহিঙ্গাদের এবার চাঁদা দাবি

স্থানীয়দের সিএনজি আটকিয়ে রোহিঙ্গাদের এবার চাঁদা দাবি

কক্সবাজার প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০১:২৩ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

রোহিঙ্গাদের হামলার প্রতিবাদে সভা

রোহিঙ্গাদের হামলার প্রতিবাদে সভা

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে সিএনজি আটকিয়ে চাঁদা দাবি করেছে সশস্ত্র রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা। এ সময় উশৃঙ্খল রোহিঙ্গারা স্থানীয় এক বাড়িতে হানা দিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়ে টিভি, ফ্রিজ, আসবাবপত্র ধ্বংস করে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার বিকেল  ৩টার দিকে কুতুপালং রেজিস্ট্রোর্ড ক্যাম্পের সশস্ত্র রোহিঙ্গারা দফায় দফায় এ হামলা চালিয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। এ ঘটনা নিয়ে এলাকায় স্থানীয় ও রোহিঙ্গাদের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

কুতুপালং গ্রামের ভুক্তভোগী জাফর আলম অভিযোগ করে জানান, দুপুর ১২ টার দিকে যাত্রী নিয়ে একটি সিএনজি গাড়ি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মুচড়ার টেক নামক স্থানে পৌঁছালে চালক গাড়িটি রাস্তার পাশে থামিয়ে পার্শ্ববর্তী দোকানে গেলে গাড়িটি কে বা কারা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। খোঁজ খবর নিয়ে চালক জানতে পারে রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্পের নুরুল ইসলামের ছেলে ইউসুফ ও তার ছেলে ফয়সাল গাড়িটি অজ্ঞাত স্থানে লুকিয়ে রাখে।

গাড়ির মালিক ও চালক জাফর আলম আরো জানান, তার গাড়িটি ফেরত চাইলে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা ৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে তর্কাতর্কি ও হাতাহাতির জের ধরে মুহূর্তেই এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মাস্টার মুন্না, ইউসুফ ও ফয়সালের নেতৃত্বে ৫০-৬০ জনের সংঘবদ্ধ সশস্ত্র রোহিঙ্গা জাফর আলমের বাড়িতে হানা দেয়। পরে রোহিঙ্গারা সড়কে চলাচলরত ৬টি সিএনজি ও কচুবনিয়া সিএনজি শ্রমিকদের অফিস ভাঙচুর করে আরো প্রায় ৬-৭ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি করেছে বলে সিএনজি শ্রমিক নেতাদের দাবি।

পরে উখিয়া সিএনজি মাহিন্দ্রা অটোরিকশা টমটম চালক শ্রমিক সমবায় সমিতির নেতৃত্বে শ্রমিক সংগঠনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, স্থানীয়দের বসতবাড়ি, সিএনজি, শ্রমিক সংগঠনের অফিস ভাঙচুর ও সিএনজি ছিনতাইকারী দুর্বৃত্ত সশস্ত্র রোহিঙ্গাদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

কুতুপালং কচুবনিয়া রাস্তার মাথায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা স্থানীয়দের বাড়িতে হামলা করে রোহিঙ্গা ও স্থানীয়দের মাঝে দূরত্ব সৃষ্টিকারী চিহ্নিত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে আটক করার দাবিও জানান। 

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, উখিয়া সিএনজি মাহিন্দ্রা অটোরিকশা টমটম চালক শ্রমিক সমবায় সমিতির সহ-সভাপতি মাসুদ আমিন শাকিল, সহ-সভাপতি ছৈয়দ হোছন, শ্রমিক নেতা মো. হোসেন, কামাল উদ্দিন।

উখিয়ার শাহপরীরদ্ধীপ হাইওয়ে পুলিস ফাঁড়ির এএস আই মতিউর রহমান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে।

উখিয়া থানার ওসি আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাননি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ