ফাঁসাতে ধর্ষণ মামলা, দণ্ড নিয়ে জেলে গেলেন বাদী

ফাঁসাতে ধর্ষণ মামলা, দণ্ড নিয়ে জেলে গেলেন বাদী

জয়পুরহাট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২৩:০৮ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৪:২২ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

দণ্ডপ্রাপ্ত মোরশেদুলকে কারাগারে নেয়া হচ্ছে

দণ্ডপ্রাপ্ত মোরশেদুলকে কারাগারে নেয়া হচ্ছে

জয়পুরহাটের কালাইয়ে শিশু ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে মোরশেদুল সরকার নামে এক ব্যক্তিকে ৫ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। সোমবার বিকেলে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক রস্তম আলী এ রায় ঘোষণা করেন।

একই সঙ্গে এ মামলার আসামি মেহেদী হাসানকে মামলা থেকে অব্যাহতির আদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত মোরশেদুল সরকার কালাই উপজেলার ভূগোইল গ্রামের খয়রাত জামানের ছেলে। 

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল মোরশেদুল সরকার তার বাক-প্রতিবন্ধী কন্যা শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ এনে একই গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে কালাই থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই বছরের ৩১ মে পুলিশ আদালতে এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করে।

আদালতে আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি যুক্তিতর্ক এবং বাদী ও স্বাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে জানা যায়, মামলার আসামি মেহেদী হাসানের সঙ্গে বাদী মোরশেদুলের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ ছিল বলে মেহেদী হাসানকে ফাঁসাতেই এমন ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। 

এমন মিথ্যা মামলা করায় মোরশেদুলকে কারাদণ্ড এবং একই সঙ্গে মামলা থেকে মেহেদী হাসানকে অব্যাহতির আদেশ দেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক। 

এ মামলার আসামিপক্ষের আইনজীবী হেনা কবীর ও বাদীপক্ষের সরকারি আইনজীবী ফিরোজা চৌধূরী এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/জেডএম