নির্যাতনের পর গৃহবধূকে কামড়ে ক্ষতবিক্ষত করলো যৌতুকলোভী স্বামী

নির্যাতনের পর গৃহবধূকে কামড়ে ক্ষতবিক্ষত করলো যৌতুকলোভী স্বামী

নাটোর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৩৩ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০  

নির্যাতন -প্রতীকী ছবি

নির্যাতন -প্রতীকী ছবি

যৌতুকলোভী স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়ে গৃহবধূ রুপা খাতুন এখন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কাতরাচ্ছেন। নাটোরের গুরুদাসপুরে শনিবার রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত রুপাকে তার স্বামী মারপিট করেন এবং তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে কামড় দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করেন।

ভুক্তভোগী রুপা পৌর সদরের চাঁচকৈড় কাচারিপাড়া মহল্লার রাজমিস্ত্রি নুরু মিয়ার ছেলে জনির স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দেড় বছর আগে জনির সঙ্গে পার্শবর্তী বড়াইগ্রামের ভিটাকাজিপুর গ্রামের আলী আহসানের মেয়ে রুপার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই জনি যৌতুকসহ বিভিন্ন কারণে রুপার ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিলেন। জনি তার বাবা-মার সামনেই রুপাকে নির্মমভাবে নির্যাতন চালান। কিন্তু বাবা-মা রুপাকে উদ্ধার করতে আসেননি। প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে তাদেরকেও গালমন্দ করা হয়।

গৃহবধূ রুপা জানান, তিনি পালিয়ে থানায় আশ্রয় নিলে পুলিশ তাকে রোববার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা করতে পাঠায়। সেখানেও তার স্বামী জনি তাকে মারপিট করতে থাকেন। পরে উপস্থিত লোকজনের জনরোষে তিনি পালিয়ে যান।

পুত্রবধূকে দেখতে আসা জনির মা জাহেরা বেগম বলেন, ছেলেকে বললেও শোনেন না। আমি কি করবো?

এ বিষয়ে গুরুদাসপুর থানার ওসি মো. মোজাহারুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম