কক্সবাজার সৈকতে ফের ভেসে আসছে বর্জ্য

কক্সবাজার সৈকতে ফের ভেসে আসছে বর্জ্য

এইচএম ফরিদুল আলম শাহীন, কক্সবাজার ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১১ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৫:১২ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

ভেসে আসা বর্জ্য ও মৃত কাছিম

ভেসে আসা বর্জ্য ও মৃত কাছিম

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে আবারো ভেসে এসেছে প্রচুর বর্জ্য ও মৃত কাছিম। সৈকতের লাবণী পয়েন্ট থেকে হিমছড়ি পর্যন্ত দীর্ঘ সাত কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে এসব বর্জ্য। এরমধ্যে রয়েছে প্লাস্টিক বর্জ্য, নাইলনের ছেঁড়া জাল, রশিসহ বিভিন্ন ধরনের প্রাণী।

এর আগে ১২ জুলাই সমুদ্র সৈকতের কলাতলী, দরিয়ানগর থেকে শুরু করে হিমছড়ি এলাকা পর্যন্ত প্রথম দফায় ভেসে এসেছিল প্রচুর প্লাস্টিক বর্জ্য, সামুদ্রিক প্রাণী ও মৃত কাছিম। ৭৬ দিন পর শুক্রবার থেকে আবারো ভেসে আসছে বিভিন্ন ধরনের বর্জ্য।

এ ঘটনায় কক্সবাজার পরিবেশ অধিদফতরের উপ-পরিচালক শেখ মো. নাজমুল হুদা, পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান ও ডাটা এন্ট্রি অপারেটর ইফতেখার উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শন শেষে তারা জানান, সমুদ্র অতি দূষণের ফলে এ ঘটনা ঘটেছে। নদী- নালা, খাল-বিল, নর্দমা ও পাহাড়ি ঢলে ভেসে আসা বর্জ্যগুলো সাগরের মোহনা দিয়ে ঢুকছে গভীর বঙ্গোপসাগরে। 

ভেসে আসা বিভিন্ন ধরনের বর্জ্য

তারা আরো জানান, সাম্প্রতিক সময়ে সাগর দফায় দফায় উত্তাল হয়ে ওঠে। ফলে সাগরের তলদেশ থেকে জমাটবাঁধা বর্জ্য, ছেঁড়া জাল, প্লাস্টিক ও রশি ভেসে ওঠে। আর এসব বর্জ্যে আটকা পড়ে মারা যাচ্ছে সামুদ্রিক কাছিম।

১২ জুলাই সমুদ্র সৈকতে বর্জ্য, মৃত কাছিম ভেসে আসার পর চারদিকে হইচই পড়ে। পরে কক্সবাজারের ডিসি মো. কামাল হোসেনের নির্দেশে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছিল। একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে এ কমিটিতে পরিবেশ অধিদফতর ও বনবিভাগের লোকজন ছিলেন। তদন্ত কমিটি পরিবেশ দূষণ ও জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পানির উচ্চতা বৃদ্ধি, ঘন ঘন সতর্কতা সংকেতের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছিল। শুক্রবার পরিবেশ অধিদফতরের তিন সদস্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে একই মন্তব্য করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর