বিভিন্ন স্থানে মানুষ হত্যা করে সাভার ও আশুলিয়ায় ফেলা হয়: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

বিভিন্ন স্থানে মানুষ হত্যা করে সাভার ও আশুলিয়ায় ফেলা হয়: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:১২ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৯:৩৮ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান

সাভারে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী নীলা রায়ের হত্যাকারীদের দ্রুত ফাঁসির দাবিতে সাভার নাগরিক কমিটি মানববন্ধন করেছে। শনিবার দুপুরে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের সাভারের গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ মানববন্ধন হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে স্থানীয় এমপি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমানসহ সাভার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজীব, স্থানীয় আওয়ামী লীগ এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ও সুশীল সমাজের লোকজন অংশ নেন।

হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে জানিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেন,  হত্যাকারীদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না। দেশের বিভিন্ন স্থানে মানুষ হত্যা করে ঘাতকরা সাভার ও আশুলিয়া নিরাপদ ভেবে এখানে ফেলে যায়। এ সময় তিনি ব্যাংক কলোনী এলাকার এক কিশোর গ্যাংয়ের বাবা সিরাজুল ইসলাম সিরুকে দ্রুত বহিষ্কারের জন্য নির্দেশ দেন।

এদিকে নীলা রায় হত্যাকারী ঘাতক কিশোর গ্যাং সদস্য মিজানুর রহমান মিজানকে শনিবার দুপুরে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ সাজা নিশ্চিত করা হবে জানিয়ে দুপুরে সাভার মডেল থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা জেলা এসপি মারুফ হোসেন সরদার বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আরো কেউ জড়িত আছে কিনা বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

শুক্রবার রাতে নীলা রায় হত্যাকাণ্ডের আসামি মিজানুর রহমান মিজানকে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউপির রাজফুলবাড়িয়ার ব্রিকস ফিল্ডের পাশে পারভেজ নামের এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ। এসময় পুলিশ তার কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

নীলার পরিবারের অভিযোগ, প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় গত ২০ সেপ্টেম্বর সাভারের পালপাড়া এলাকায় স্থানীয় ব্যাংক কলোনী এলাকার অ্যাসেড স্কুলের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নীলা রায়কে কুপিয়ে হত্যা করেন মিজানুর রহমান মিজান। এ ঘটনার পর থেকে সে এতদিন পলাতক ছিল।

এ ঘটনায় নীলার বাবা নারায়ণ রায় গত সোমবার রাতে সাভার মডেল থানায় মিজানুর, তার বাবা আবদুর রহমান, মা নাজমুন্নাহার সিদ্দিকাসহ অজ্ঞাতনামা আরও চারজনকে আসামি করে মামলা করেন। আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সাভার উপজেলাবাসী।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস