বজ্রপাতে রাইজারে আগুন, অল্পে রক্ষা পেল তিন গ্রাম  

বজ্রপাতে রাইজারে আগুন, অল্পে রক্ষা পেল তিন গ্রাম  

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৪৫ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে বজ্রপাতে অবৈধ গ্যাসের রাইজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে তিন গ্রামের মানুষ। শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার মুড়াপাড়া ইউপির বানিয়াদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভালে অল্পের জন্য রক্ষা পায় তিন গ্রামের মানুষ।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাত ১টার দিকে উপজেলার বানিয়াদী এলাকার শ্রী রমেশ চন্দ্র ও ছোট ভাই পরেশ চন্দ্রের আবাসিক লাইনের দুটি গ্যাসের রাইজারে বজ্রপাতে আগুন ধরে যায়। পরে সঙ্গে থাকা আরো তিনটি গ্যাসের রাইজারেও আগুন ধরে যায়। গ্যাসের রাইজারে আগুন জ্বলতে দেখে স্থানীয়রা চারদিকে ছুটাছুটি করে পানি ও বালু দিয়ে আগুন নেভাতে চেষ্টা করেন।

এ সময় গ্যাসের রাইজারের পাশে থাকা একটি টিনের ঘর আগুনে পুড়ে যায়। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ইউএনও শাহ্ নূসরাত জাহান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

পরে ইউএনও ও স্থানীয়রা কাঞ্চন ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে দিবাগত রাত দেড়টার দিকে কাঞ্চন ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ও তিতাস গ্যাসের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে আধা ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

ততক্ষণে ৫টি গ্যাসের রাইজার পুড়ে যায়। পরে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ ও ফায়ার সার্ভিস মিলে ৫টির রাইজারে গ্যাসের লাইন বন্ধ করে দেয়। ঠিক সময় মতো আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে পারায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় বানিয়াদী, বলায়নগর, কাটাখালী এলাকার মানুষ।

আগুনে পুড়ে যাওয়া গ্যাসের আবাসিক লাইনের রাইজারগুলো অবৈধ সংযোগ বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। এ অবৈধ গ্যাস সংযোগগুলো নিম্নমানের পাইপ ও সামগ্রী দিয়ে নেওয়ার কারণে দুর্ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলছে স্থানীয়দের অভিযোগ।

কাঞ্চন ফায়ার সার্ভিসের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন অফিসার হাবিব মোহাম্মদ সামাদ বলেন, গ্যাসের রাইজারে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই। আমরা সময়মতো ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন না নেভালে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো। যে গ্যাসের রাইজার দুটিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে সেগুলো বৈধ সংযোগ কিনা জানতে চাইলে তিনি এ ব্যাপারে কথা বলতে রাজি হননি।

এ ব্যাপারে যাত্রামুড়া তিতাস গ্যাস কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক জাফরুল আলম জানান, মোট ৫টি গ্যাসের রাইজার আগুনে পুড়ে যায়। যার মাঝে ১টি মাত্র বৈধ সংযোগ ছিল আর বাকি ৪টি অবৈধ সংযোগ ছিল। আগুন নেভানোর পর রাইজারগুলোর লাইন বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বজ্রপাতের কারণে রাইজারে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে।

এ ব্যাপারে ইউএনও শাহ্ নূসরাত বলেন, গ্যাসের রাইজারে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে দ্রুত উপস্থিত হই। পরে তাৎক্ষণিক কাঞ্চন ফায়ার সার্ভিস ও তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষকে খবর দিলে তারা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।   

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ