সংরক্ষণ হলেই ঐতিহ্যে ফিরবে বাজপেয়ির জমিদারবাড়ি

সংরক্ষণ হলেই ঐতিহ্যে ফিরবে বাজপেয়ির জমিদারবাড়ি

ইমন চৌধুরী, পিরোজপুর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:৩৩ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:১০ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

ব্রিটিশ শাসনামলে দক্ষিণাঞ্চলের কঁচা নদীর তীরবর্তী পিরোজপুরের ইন্দুরকানীর পাড়েরহাট বন্দরে গড়ে ওঠে জমিদারবাড়ি। জমিদার সূর্য প্রসন্ন বাজপেয়ি এ এস্টেটের জমিদার ছিলেন।

তিনি এখানে গড়ে তোলেন কাচারিবাড়ি, নিজের সভা ও শয়ন কক্ষ। দুই একর জমির ওপর নির্মিত এ প্রাসাদের দেয়াল, ইট ও ছাউনি টালি দিয়ে তৈরি। কিন্তু সংরক্ষণের অভাবে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী এ জমিদারবাড়িটি।

প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর বাড়িটি সংস্কার করে রক্ষা করলে এটি দর্শনার্থীদের জন্য আকর্ষণীয় স্থান হবে বলে দাবি স্থানীয় ব্যবসায়ী ও বিশিষ্টজনদের। পিরোজপুরের ডিসি বলছেন, জমিদার বাড়িটির ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরতে সব ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, জমিদারবিাড়িটির কোনো কোনো ভবনের ছাদ এখন আর নেই। দরজা-জানালাগুলো খুলে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। কোনো কোনো ভবন ছেয়ে গেছে লতা-পাতা-গাছে।

আরো পড়ুন >>> ড. এ.পি.জে আবদুল কালাম: সর্বাধিক সম্মানিত রাষ্ট্রপ্রধান

জমিদারবাড়িটির সামনে দক্ষিণ-পূর্ব প্রান্তে দিয়ে চলে গেছে একটি রাস্তা। এর সামনে একটি পুকুর রয়েছে। এর পাশেই উত্তর-পূর্ব প্রান্তে পাড়েরহাট পোস্ট অফিস ও আর দক্ষিণ প্রান্তে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিভিন্ন এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ীরা যখন সমুদ্র থেকে মাছ ধরে এনে এখানে বিক্রি করতে আসেন তখন অনেকেই জমিদারবাড়িটিতে চোখ বুলিয়ে যান। অন্য এলাকা থেকে আসা অনেকেও স্থানীয় লোকজনের কাছে জানতে চান এ বাড়ির ইতিহাস। 

আরো পড়ুন >>> মাত্র একটি আখের জন্য দুরন্ত কিশোরকে বেধড়ক পিটুনি

১৯৪৭ সালে ভারত ভাগের পর এই জমিদারবাড়ির মানুষজন এলাকা ছেড়ে চলে যান। পরে তারা ও তাদের উত্তরসূরিরাও আসেননি এলাকায়। সংস্কার না করায় ও অব্যবস্থাপনার কারণে বাড়িটি ধ্বংস হতে থাকে। জমিদারবাড়িটি বর্তমানে সরকারের খাস খতিয়ানের অন্তর্ভুক্ত।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, ব্রিটিশ শাসনামলে বাজপেয়ির জমিদারবাড়িটি ছিল এ এলাকার জন্য একটি ঐতিহ্য। কিন্তু পরিত্যক্ত বাড়িটি এখন ধ্বংস প্রায় তাই স্থানীয়দের দাবি, জমিদার বাড়িটি সরকারিভাবে সংস্কার করে এর ইতিহাস ও ঐতিহ্য নতুন প্রজন্মেও কাছে তুলে ধরা হোক এবং এটিকে একটি পর্যাটন কেন্দ্র করা হোক।

এদিকে পিরোজপুরের ডিসি বলছেন, আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন,পাড়েরহাট জমিদার বাড়িটির সংস্কারের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হবে। ‘সূর্য প্রসন্ন বাজপেয়ির জমিদারবাড়িটি প্রায় ২০০ বছর কালের সাক্ষী হয়ে আছে। এটি সংস্কারের উদ্যেগ নিবে সরকার এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে