চুল কেটে চুন মাখিয়ে নারীকে নির্যাতন, কেকা ‘আপা’কে দল থেকে বহিষ্কার

চুল কেটে চুন মাখিয়ে নারীকে নির্যাতন, কেকা ‘আপা’কে দল থেকে বহিষ্কার

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৩১ ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০  

শারমীন মৌসুমী কেকা

শারমীন মৌসুমী কেকা

চুল কেটে নারীর শরীরে চুন মাখিয়ে নির্যাতন করার অভিযোগে দল থেকে সেই রাজনৈতিক নেত্রী শারমীন মৌসুমী কেকা ‘আপা’কে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শারমীন মৌসূমী কেকা ঝালকাঠি জেলার একটি রাজনৈতিক সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। সোমবার সন্ধ্যায় ঝালকাঠি শহরের টাউন হলে এক জরুরি সভায় তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির অ্যাডভোকেট এম আলম খান কামাল। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির জেলা সভাপতি সরদার মো. শাহআলম।

অ্যাডভোকেট এম আলম খান কামাল জানান, গৃহবধূকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে মাথার চুল কেটে দেয়ায় আদালতে মামলা এবং বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষর জাল করে শহিদ মিনার ভেঙে স্টল নির্মাণ করায় কেকা আপাকে নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়। এমন অভিযোগে তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

৩০ আগস্ট রাত ৮টার দিকে এক গৃহবধূকে জিম্মি করে সারারাত নির্যাতন শেষে মুক্তিপণ আদায় ও মাথার চুল কেটে শরীরের বিভিন্ন স্থানে চুন মাখিয়ে দেন কেকা আপা ও তার লোকজন। এ সময় ওই নির্যাতিত নারীর বিনীত অনুরোধে তার প্রাণ ভিক্ষা দেয়ার কথা বলে এ কথা কাউকে জানালে আগুন দেয়ারও হুমকি দেয়া হয়।

এ ঘটনায় ১৭ সেপ্টেম্বর ঝালকাঠির সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে শারমিন মৌসুমী কেকাসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন নির্যাতনের শিকার ওই নারী। পরে আদালত মামলাটি নথিভুক্ত করে ভুক্তভোগী নারীকে নিরাপত্তা দিতে সদর থানার ওসিকে নির্দেশ দেয়। রাতেই সদর থানায় মামলাটি রেকর্ড করেন ওসি মো. খলিলুর রহমান। এরপর থেকে আসামিরা পলাতক রয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর