‘মেয়ের কোল ভরিয়ে দিতে’ অন্য মায়ের সন্তান চুরি করলেন মা

‘মেয়ের কোল ভরিয়ে দিতে’ অন্য মায়ের সন্তান চুরি করলেন মা

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:২১ ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ২১:৩১ ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

‘মেয়ের কোল ভরিয়ে দিতে’ অন্য মায়ের সন্তান চুরি করলেন মা

‘মেয়ের কোল ভরিয়ে দিতে’ অন্য মায়ের সন্তান চুরি করলেন মা

একই দিন ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুই শিশুর জন্ম দেন দুই প্রসূতি। ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে প্রসূতি আন্না বেগমের সন্তানটি মারা যায়। কিন্তু আন্না তার সন্তানের মৃত্যুর খবর জানতেন না। তাই আকলিমা নামের এক প্রসূতির সন্তান চুরি করে মেয়ে আন্নার কোল ভরিয়ে দিতে আকলিমার সন্তানকে চুরি করেন মা নাজমা বেগম। অবশেষে চুরি হওয়ার সন্তানকে উদ্ধার করে আকলিমার কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে পুলিশ।

রোববার রাত থেকে সোমবার দুপুর ১টা পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে। আকলিমা মাদারীপুর সদরের সৈয়দ নূর শিরখাড়া গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রুবেল মুন্সীর স্ত্রী।

হাসপাতাল সূত্রে জানায়, গত ১৮ সেপ্টেম্বর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন সন্তানসম্ভবা মা আকলিমা। গত রোববার সিজারের মাধ্যমে একটি ছেলের জন্ম দেন তিনি। পরে আকলিমা ও তার সদ্যজাত সন্তানকে হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ডে রাখা হয়। একইদিন সিজারের মাধ্যমে আরেক মা আন্না বেগম একটি সন্তান প্রসব করেন। আন্নার সন্তান অসুস্থ হলে তাকে ফরিদপুর ডা. জাহেদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে সেখানেই শিশুটির মৃত্যু হয়।

এদিকে আন্নার সন্তান মারা যাওয়ায় মেয়ের কোল ভরে দিতে আকলিমার সদ্যজাত ছেলেকে চুরি করেন মা নাজমা বেগম। রোববার রাত সাড়ে ৩টায় চুরির ঘটনাটি তিনি ঘটান। শিশুটিকে চুরি করে প্রথমে ফরিদপুর সদরের নিখুর্দী গ্রামে মেয়ে লাবনী বেগমের বাড়িতে রাখেন। পরে তাকে সদরপুরে ঠেঙ্গামারীতে নিয়ে যান।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার এসআই প্রবীর রায় জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সোমবার বেলা ১১টায় নাজমা বেগমের বাড়ি থেকে আকলিমার চুরি যাওয়া শিশুকে উদ্ধার করা হয় । এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নাজমা বেগম ও তার এক মেয়ে লাবনী বেগমকে আটক করা হয়েছে।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি মোরশেদ আলম বলেন, নিজের মেয়ের কোল ভরিয়ে দিতেই আকলিমার সদ্যজাত সন্তানকে চুরি করেন নাজমা। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এরইমধ্যে আকলিমার সন্তানকে তার স্বামী রুবেল মুন্সীর হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ