সংঘাত-দ্বন্দ্ব-কোন্দলে জর্জরিত কক্সবাজার বিএনপি

সংঘাত-দ্বন্দ্ব-কোন্দলে জর্জরিত কক্সবাজার বিএনপি

এইচএম ফরিদুল আলম শাহীন, কক্সবাজার ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৫৮ ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ২০:৩৮ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কক্সবাজার জেলা বিএনপির সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল ২০০৯ সালে। ১১ বছর ধরে সম্মেলন না হওয়া ও নতুন কমিটি গঠন না করায় নেতা-কর্মীদের মধ্যে বাড়ছে ক্ষোভ। সংঘাত, দ্বন্দ্ব, নেতৃত্বের কোন্দলসহ নানা কারণে ঝিমিয়ে পড়ছে জেলা বিএনপি।

দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন আহমদ বর্তমানে ভারতের মেঘালয়ের শিলং শহরে রয়েছেন। সেখান থেকেই তিনি কক্সবাজারের জেলা-উপজেলা-ইউপি বিএনপিকে চালাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী।

১৯৯৬ ও ২০০১ সালে সালাউদ্দিন আহমেদ কক্সবাজার-১ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০৬ সালে তিনি বিএনপির নেতৃত্বাধীন চার দলীয় জোট সরকারের যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। একাধারে কক্সবাজার জেলা বিএনপির সভাপতিও ছিলেন তিনি। ২০০৯ সালে সালাউদ্দিন আহমেদ কারাগারে থাকায় আইনি জটিলতার কারণে নির্বাচন করতে পারেননি। তখন তার স্ত্রী কক্সবাজার-১ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন।

এর মধ্যে সালাউদ্দিন আহমেদ জেল থেকে ছাড়া পেলেও একাধিক দুর্নীতি ও অর্থ আত্মসাৎ মামলা ছিল তার বিরুদ্ধে। ২০১৫ সালের ১০ মার্চ ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলং শহরে অবৈধ অনুপ্রবেশের কারণে মামলা হয় সেখানকার আদালতে। বেশ কিছুদিন সেখানে কারাভোগের পর জামিনে মুক্ত হন সালাউদ্দিন আহমেদ।

সম্প্রতি শিলং আদালতের একটি রায়ে সালাউদ্দিন আহমেদকে বাংলাদেশের আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার হাতে তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। পরে রাষ্ট্রপক্ষ মেঘালয় হাইকোর্টে আপিল করলে আদালত ওই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত শিলং শহরের বাইরে না যাওয়ার নির্দেশনা জারি করেন তার ওপর। এখন তিনি শিলং-এ বসেই কক্সবাজার বিএনপির রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করছেন। ফলে জেলা থেকে শুরু করে উপজেলা ও ইউপি বিএনপি দুটি অংশে বিভক্ত হয়ে গেছে। একটি অংশের নেতৃত্বে রয়েছেন সালাউদ্দিন আহমেদ, অপরটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির মৎস্য বিষয়ক সম্পাদক লুৎফর রহমান কাজল।

এ ধারায় জোরালো ভূমিকা পালন করেছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির বহিষ্কৃত সদস্য আলমগীর মোহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ। বিএনপির বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

জেলা বিএনপির এক শীর্ষ নেতা বলেন, করোনার কারণে দলের কার্যক্রম স্থগিত ছিল। আগামীদিনে নেতা-কর্মীদের সংগঠিত করে কেন্দ্র ঘোষিত সব কার্যক্রম ও কর্মসূচি যথাযথভাবে পালন করা হবে।

কক্সবাজার বিএনপির বর্তমান সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক শামীম আরা স্বপ্না জানান, করোনার কারণে দলীয় কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড শুরু হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর/এইচএন/এমআর