আল্লামা শফীকে এক নজর দেখতে লাখো মানুষের ঢল

আল্লামা শফীকে এক নজর দেখতে লাখো মানুষের ঢল

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫৫ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৪:২১ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

আল্লামা শফীকে দেখতে ভক্তদের উপচে পড়া ভিড় (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

আল্লামা শফীকে দেখতে ভক্তদের উপচে পড়া ভিড় (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

আল্লামা আহমদ শফীকে শেষ বিদায় জানাতে লাখো মানুষের ঢল নেমেছে দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার অভিমুখে। যেন কোথাও তিল পরিমাণ জায়গা খালি নেই।

মাদরাসা প্রাঙ্গন ছাড়াও হাটহাজারী মেডিকেল থেকে বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত সড়কেও আল্লামা শফির ভক্তদের উপচে পড়া ভিড়।

আর এ কারণে প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। শফির জানাজাকে ঘিরে কঠোর সতর্ক অবস্থায় আছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। হাটহাজারী বাসস্ট্যান্ড মোড় ও মেডিকেলের সামনে চেকপোস্ট বসিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ওই সড়কে যান চলাচল।

আরো পড়ুন: প্রবৃদ্ধির আশা দেখাচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর

শনিবার ভোর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ছুটে আসছেন লাখো অনুসারীরা। তাই জানাজায় যোগ দিতে আসা জনসাধারণের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে হাটহাজারী বাস স্টেশন থেকে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পুরো এলাকাজুড়ে বাড়ানো হয়েছে আইনশৃংখলা বাহিনীর তৎপরতা। নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে মোতয়েন করা হয়েছে র‌্যাব ও পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের। ১০ প্লাটুন বিজিবি সদস্য আছেন হাটহাজারী, পটিয়া, রাঙ্গুনিয়া ও ফটিকছড়িতে। এছাড়া ৪ উপজেলায় দায়িত্ব পালন করছেন ৭ জন ম্যাজিস্ট্রেট।

জোহর নামাজের পর হাটহাজারী মাদরাসা প্রাঙ্গনে জানাজা অনুষ্টিত হবে। এতে ইমামতি করবেন শফীপুত্র মাওলানা মোহাম্মদ ইউসুফ। জানাজা শেষে মাদরাসার ভেতরে বায়তুল আতিক জামে মসজিদ কবরস্থানে দেশবরেণ্য এ আলেমকে দাফন করা হবে।

দূরদূরান্ত থেকে আসা ভক্ত-অনুরাগীদের মধ্যে রয়েছে প্রচন্ড শোকের ছায়া। চট্টগ্রামের পটিয়া থেকে আসা হাফেজ জয়নাল আবেদিন নামে একজনের সঙ্গে কথা হয় ডেইলি বাংলাদেশের।

একসময় পটিয়ার জিরি মাদরাসায় শিক্ষকতা করা এই আলেম বলেন, আজীবন সত্য ও হকের পক্ষে ছিলেন শাহ আহমদ শফী। তিনি শুধু বাংলাদেশের নয়, বরং বিশ্বসেরা আলেমদের একজন ছিলেন। জীবনের সবটুকু সময় তিনি দ্বীনের খেদমত করেছেন।

শেষ সময়ের ঘটে যাওয়া ঘটনা প্রবাহ সম্পর্কে তিনি বলেন, আল্লাহ তার প্রিয় বান্দাদের নানাভাবে পরীক্ষা করেন। উনাকেও তাই করেছেন।

আরো পড়ুন: ‘দুইটা বাচ্চা নিয়ে কার কাছে দাঁড়াবো’

এদিকে মাওলানা আহমদ শফীকে সমাহিত করতে হাটহাজারী মাদরাসার ভেতরের উত্তর পাশের বায়তুল আতিক মসজিদের সামনে কবর খোঁড়া হয়েছে। ১০ থেকে ১২ জনের একদল শিক্ষার্থী নিয়োজিত আছেন সেখানে।

র‍্যাব ও পুলিশের কড়া প্রহরায় মাওলানা আহমদ শফির মরদেহ সকাল সাড়ে ৯টায় হাটহাজারী এসে পৌঁছায়। এর আগে সকাল ৮টায় চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি আনোয়ার হোসেন, এসপি রসিদুল হক, র‍্যাবের সিইও মশিউর রহমান জুয়েল বায়তুল আতিক মসজিদ এলাকায় অবস্থিত কবরস্থান পরিদর্শন করেছেন।

এ সময় ডিআইজি আনোয়ার হোসেন বলেন, মরহুম আহমদ শফীর জানাজা ও দাফনের জন্য সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলাসহ সার্বিক বিষয়ে প্রশাসনের প্রস্তুতি সর্বোচ্চভাবেই রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম