প্রবৃদ্ধির আশা দেখাচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর

প্রবৃদ্ধির আশা দেখাচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:২৯ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:০১ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

চট্টগ্রাম বন্দর (ফাইল ছবি)

চট্টগ্রাম বন্দর (ফাইল ছবি)

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে মানুষের জীবনযাত্রা ও অর্থনীতি। এতে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অধিকাংশ বন্দরের অগ্রগতি স্তিমিত হয়ে পড়েছে। তবে এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম ঘটেছে চট্টগ্রাম বন্দরে।  

নানা সংকটের মধ্যেও এই বন্দর চলতি অর্থবছরে ৬ শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি করবে বলে আশা করা হচ্ছে। অথচ বিশ্বের শীর্ষ পাঁচটি বন্দরের বর্তমান অগ্রগতি নেতিবাচক। 

জানা গেছে, গত বছরের শেষে (ডিসেম্বর) চীনের উহান থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্বজুড়ে একে একে বন্ধ হতে থাকে সব ধরনের কার্যক্রম। ফেব্রুয়ারিতে এসে অচলাবস্থা মারাত্মক আকার ধারণ করে। ব্যবসা-বাণিজ্য স্থবির হয়ে পড়ায় অচল হতে থাকে বন্দরগুলোর অপারেশন। কিন্তু স্রোতের বিপরীতে চলেছে চট্টগ্রাম বন্দর। একদিনও বন্ধ ছিল না এ বন্দরের কার্যক্রম। প্রথম দিকে পণ্য উঠা-নামা কিছুটা কম থাকলেও জুলাই মাসে এসে রেকর্ড ছাড়িয়ে যায় এর অগ্রগতি।

আরো পড়ুন: মেয়েকে অন্যত্র বিয়ে দিলে স্বামী গুম হবে, ছাত্রনেতার হুমকি

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রশাসন ও পরিকল্পনা বিভাগের সদস্য মোহাম্মদ জাফর আলম জানান, ইমপোর্ট হয়েছে এক্সপোর্ট বেড়েছে যার ফলে জুলাইতে অগ্রগতি হয়েছে। এখনো যে কার্যক্রম তাতে বছর শেষে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি হবে।

আর পিআইএল লিমিটেডের ভারপ্রাপ্ত প্রধান আবদুল্লাহ জহির বলেন, পোশাক কারখানা খোলা থাকায় পুরোটা সময় ধরেই বন্দরের কার্যক্রম সচল ছিল। 

ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরামের সভাপতি এস এম আবু তৈয়বের দাবি, লকডাউন চলাকালে গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের সাহসী সিদ্ধান্তে বাংলাদেশের অর্থনীতির গতি সচল রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি এ এম চৌধুরী সেলিম বলেন, অবশ্যই রফতানিমুখী পোশাক কারখানা খোলা রাখার সিদ্ধান্ত অনেক বড় ভূমিকা রেখেছে।

এর মাঝে গতিশীলতাকে কাজে লাগিয়ে লয়েড লিস্টে বিশ্বের একশো শীর্ষ বন্দরের মধ্যে ৬ ধাপ এগিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর চলে আসে ৫৮তম স্থানে। গত দুই মাসে বন্দরে কন্টেইনার হ্যান্ডলিং হয়েছে ৪ লাখ ৭৫ হাজার টিইউএস। এছাড়া, পণ্যবাহী জাহাজ এসেছে ৫৬৮টি।

আরো পড়ুন: বাবা-ছেলের আর হাওর দেখার সাধ মিটলো না

চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি  মাহবুবুল আলম বলেন, মানুষ তার কাজের মধ্যে ছিলো। প্রতিটি খাতের মানুষ তার কাজ করেছে।

করোনাকালেও আমদানি-রফতানি বেড়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বন্দর বার্থ অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ফজলে একরাম চৌধুরী। 

দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের ৯২ শতাংশ সম্পন্ন হয় এই বন্দর দিয়েই। যার মাধ্যমে বছরের রাজস্ব আয়ের পরিমাণ ৬০ হাজার কোটি টাকার বেশি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম/এইচএন