দুই ঘণ্টার দেশীয় মাছের হাট

দুই ঘণ্টার দেশীয় মাছের হাট

গাজীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৫৯ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

দেশীয় মাছ কেনায় ব্যস্ত ক্রেতারা

দেশীয় মাছ কেনায় ব্যস্ত ক্রেতারা

গ্রামের নাম রঘুনাথপুর। দুই পাশে তুরাগ আর গোয়ালিয়া নদী। গাজীপুর শহর থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরে কালিয়াকৈর উপজেলার এই গ্রামটির জেলে পল্লীতে এখনো বহু মানুষের বাস। বছরের বড় একটি অংশজুড়ে মাছ ধরে জীবিকা চালান তারা। রাতভর মাছ শিকারের পর ভোরের হাটে টাটকা দেশীয় মাছের পসরা সাজিয়ে ডাক হাঁকেন। অল্প সময়ে স্বল্প দামে পুরো রাতের পরিশ্রম তুলে দেন অন্যের হাতে। প্রতিদিন ভোর থেকে শুরু হওয়া বাজার চলে মাত্র দুই ঘণ্টা। 

সরেজমিন দেখা যায়, পসরা সাজানো রুই, কাতল, চাপিলা,পুঁটি, মলা,চিংড়িসহ হরেক রকম দেশীয় মাছ। বিক্রেতা মাছ সামনে নিয়ে নিলামে ডাক তুলছেন। কখনো ৩০০-৫০০ টাকা, আবার কখনো পরিমাণে বেশি হলে হাজার টাকাও দাম হাঁকাচ্ছেন। এই নিলামে যে ক্রেতা বেশি দাম ডাকছে, সেই পাচ্ছেন পছন্দের দেশীয়ও মাছ। আশপাশের মানুষ ছাড়াও দূর দূরান্ত থেকে ভিড় করেছেন ক্রেতারা। 

শিমুল শেখ সাভার থেকে এসেছেন মাছ কিনতে। কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি বলেন, একেবারে টাটকা মাছ পাওয়া যাওয়ায় এই বাজারে মাছ কিনতে এসেছেন তিনি। কি মাছ কিনবেন এমন প্রশ্নে তিনি বললেন, কোনো টার্গেট নিয়ে আসা হয়নি। দেশীয় যেকোন মাছ। 

বাজার শেষে মাছ কিনে ফিরছেন মাওনা থেকে আসা শফিকুল ইসলাম। তার সঙ্গে কথা বলেও বোঝা গেল, তিনি সাধ্যমতো পছন্দের চান্দা আর মলা কিনেছেন।

এই বাজার নিয়ে কথা হয় ইজারাদার বাশির উদ্দীনের সঙ্গে। তিনি বলেন, প্রশাসনের সর্বোচ্চ সহযোগিতা রয়েছে। বাজার চালাতে কোনো সমস্যা নেই।
রঘুনাথপুরসহ আশপাশের কয়েকটি এলাকার জেলেরা মাছ বিক্রি করে জীবিকা চালান এই বাজারে। বহু আগে থেকে চলে আসা বাজারটি টিকিয়ে রাখতে নির্দিষ্ট একটু জায়গা প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

তিনি আরো জানান, মাত্র দুই ঘণ্টা চলা এই বাজারে প্রতিদিন প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার দেশীয় মাছ বেচাকেনা হয়। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ