বিয়ের পর বউভাত করা হলো না বরের, গেলেন কারাগারে

বিয়ের পর বউভাত করা হলো না বরের, গেলেন কারাগারে

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৩৪ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১২:২২ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বউভাতের অনুষ্ঠান চলছিল, খবর পেয়ে উপস্থিত হন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু রাসেল

বউভাতের অনুষ্ঠান চলছিল, খবর পেয়ে উপস্থিত হন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু রাসেল

বিয়ে হলো ধুমধামে। বর ও কনের বাড়ি ভাসছিল আনন্দের জোয়ারে। কিন্তু বউভাতের অনুষ্ঠান সে আনন্দ মুহূর্তে থামিয়ে দিয়ে পাল্টে দিল বিয়ের চিত্র।

বর ইসরাফিলের বাড়িতে বৃহস্পতিবার বউভাতের অনুষ্ঠান চলছিল। খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু রাসেল। পরে কমিশনার আবু রাসেল সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বর মো. ইসরাফিল ইসলামকে বাল্যবিয়ে নিরোধ আইন-২০১৭ এর ৭ (১) ধারা অনুযায়ী তিন মাসের কারাদণ্ড দেন।

আরো পড়ুন: এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে যা জানালো আন্তঃশিক্ষা বোর্ড

একইসঙ্গে তার বাবা মো. শহিদুল ইসলামকে বাল্যবিয়ে নিরোধ আইন-২০১৭ এর ৮ ধারা অনুযায়ী পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন গুরুদাসপুরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু রাসেল।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার বিয়াঘাট ইউপির হামলাইকোল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

বাল্যবিয়ের জেরে ইসরাফিল নামে ওই যুবককে তিন মাসের কারাদণ্ড ও বাবা শহিদুল ইসলামকে জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

কয়েকদিন আগে যোগেন্দ্রনগর গ্রামের সাইফুল ইসলামের মেয়ে দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিরিন সুলতানার সঙ্গে হামলাইকোল গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে ইসরাফিলের বিয়ে হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ