জরায়ু অপারেশনের সময় অজ্ঞান গৃহবধূ, বাঁচানো গেল না

জরায়ু অপারেশনের সময় অজ্ঞান গৃহবধূ, বাঁচানো গেল না

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৩:১৩ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৫:৩০ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

এক গৃহবধূর জরায়ু অপারেশনের জন্য অ্যানেসথেসিয়া দিয়ে অজ্ঞান করে অপারেশনের পর তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। মৃত গৃহবধূর নাম বিউটি বেগম। 

বুধবার সন্ধ্যায় বরগুনা শহরের কলেজ রোডে অবস্থিত মডার্ন সেন্টাল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটেছে।

সেন্টাল হাসপাতাল ও পুলিশের সূত্রে জানা গেছে, বরগুনা পৌর শহরের চরকলোনি এলাকার জাকির হোসেনের স্ত্রীর জরায়ু অপারেশনের জন্য বুধবার দুপুরে ওই হাসপাতালে কর্মরত নার্স বিউটি বেগমের পুত্রবধূ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে ডা. খায়রুল ইসলাম তাকে ইনজেকশন (অ্যানেসথেসিয়া)  দিয়ে অজ্ঞান করার পর সিভিল সার্জন ডা. হুমাউন শাহিন খান বিউটি বেগমের জরায়ু অপারেশন করেন। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পরও জ্ঞান ফিরে না আসায় চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আরো পড়ুন: হাজারো প্রেমের সাক্ষী এই ‘নিষিদ্ধ চত্বর’!

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা. হুমাউন শাহিন খান বলেন, খুবই দুঃখজনক বিষয় এটি। তবে অজ্ঞান অবস্থায়ই সম্ভবত হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মূত্যু হয়েছে তার। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।

বিউটি বেগমের পরিবারের সদস্যরা এ সময় পুলিশ ও সাংবাদিকদের বলেন, বিউটি বেগম আগে থেকেই অসুস্থ ছিলেন। 

বিউটি বেগমের পুত্রবধূ নার্স  ইভা আক্তার বলেন, তার শাশুড়ি অসুস্থ ছিলেন। অপারেশনের সময় তিনিও অপারেশন থিয়েটারে উপস্থিত ছিলেন বলে জানান।

বরগুনা থানার ওসি তারিকুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে জানতে পারি অপারেশনের জন্য অজ্ঞান করার পর বিউটি বেগমের জ্ঞান ফেরেনি। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে বিউটি বেগমের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম