থমকে গেছে জামায়াতের সংস্কার!

থমকে গেছে জামায়াতের সংস্কার!

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৫১ ১৭ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৯:৩০ ১৭ জানুয়ারি ২০২২

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীকে সংস্কার করতে বেশ সরব হন দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির কর্তাব্যক্তিরা। তবে বেশ কয়েকটি কারণে আবার থেমে গেছে জামায়াতে ইসলামীর সংস্কার।

জানা গেছে, প্রধান সাতটি এজেন্ডায় জামায়াতে ইসলামীর সংস্কার ঝুলে রয়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারিতে দলটির নেতাকর্মীরা নতুন রাজনৈতিক সংগঠন গড়ে তোলার প্রচেষ্টা শুরু করেন। কিন্তু মতপার্থক্যের কারণে ছয় মাস অতিক্রান্ত হলেও নতুন সংগঠনের রূপরেখা চূড়ান্ত হয়নি। এমনকি থেমে আছে এ সংক্রান্ত পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট বিশেষ কমিটির কার্যক্রমও।

জামায়াতের একটি সূত্র জানায়, নতুন সংগঠনের সাংগঠনিক, আদর্শিক, অর্থনৈতিক উৎসসহ নানা বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি পাঁচ সদস্যের কমিটি। বিশেষ করে নতুন সংগঠনটি কী জামায়াতের অঙ্গ হিসেবে থাকবে নাকি আলাদা হবে- সে বিষয়ও সুরাহা হয়নি। এছাড়া দলের আদর্শ ধর্মভিত্তিক নাকি সেক্যুলার হবে, গঠনতন্ত্রের ফরম্যাট কী হবে, নেতৃত্ব কারা দেবে, সংগঠনের অর্থনৈতিক কাঠামো কী হবে, যারা নতুন সংগঠনে যুক্ত হবেন তারা মূল দল জামায়াতের স্বপদে থাকবে কিনা এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেননি জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানের নেতৃত্বাধীন বিশেষ কমিটি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রশিবিরের এক কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, নতুন নামে সংগঠন আত্মপ্রকাশ করলেও কতটা রাজনৈতিক ফল আসবে তা এখন প্রশ্নসাপেক্ষ। বিশেষ করে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের বিষয়ে জামায়াতে ইসলামীর যে অবস্থান সেখান থেকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার কোনো পরিকল্পনা কমিটির নেই। সেক্ষেত্রে নতুন নামে এলেও দল কতটা কার্যকরী হবে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে। ফলে এসব বিষয় নিয়ে সংস্কার কমিটির কার্যক্রম থেমে আছে।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের বৈঠক থেকে জামায়াতের কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্যদের কাছে বিবেচনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রস্তাবনা পাঠানো হয়। এরপর শুরা সদস্যদের অভিমতের ভিত্তিতে নতুন নামে সংগঠন গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত হয় এবং  একই সঙ্গে পাঁচ সদস্যের একটি বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়। অবশ্য  কমিটি গঠনের বিষয়টি গোপন রাখার অভিযোগে লন্ডনে অবস্থানকারী ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক তৎকালীন জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেলের পদ ছেড়ে দেন। এরপর শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে দল থেকে ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান মঞ্জুকে বহিষ্কার করা হয়। বর্তমানে মঞ্জুর উদ্যোগে একটি রাজনৈতিক দল গঠনের প্রক্রিয়াও চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ