কবি রজনীকান্ত সেন’র জন্মবার্ষিকী আজ

কবি রজনীকান্ত সেন’র জন্মবার্ষিকী আজ

শিল্প ও সাহিত্য ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৫৮ ২৬ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১২:৫৯ ২৬ জুলাই ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাংলা সাহিত্যে শিশু-কিশোরদের মনে যিনি ‘স্বাধীনতার সুখ’ জাগিয়ে তুলেন তিনি রজনীকান্ত সেন। একাধারে কবি, গীতিকার ও সুরকার হিসেবে বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে অবিস্মরণীয় স্থান দখল করে আছেন রজনীকান্ত। আজ ২৬ জুলাই, ১৮৬৫ সালে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার সেনভাঙ্গা গ্রামে জন্মেছিলেন শিশু-কিশোরদের হৃদয় জুড়ানো এই কবি।  

রজনী যেই কবিতায় শিশু-কিশোরদের মনে স্বাধীনতার ঢেউ তুলেছেন বাংলা সাহিত্যে সেই কবিতাটি হলো,

‘স্বাধীনতার সুখ’

বাবুই পাখীরে ডাকি’ বলিছে চড়াই,—
“কুঁড়ে ঘরে থেকে কর শিল্পের বড়াই?
আমি থাকি মহাসুখে অট্টালিকা পরে
তুমি কত কষ্ট পাও রোদ, বৃষ্টি, ঝড়ে!”


  বাবুই হাসিয়া কহে, “সন্দেহ কি তায়!
  কষ্ট পাই, তবু থাকি নিজের বাসায়;
  পাকা হোক্, তবু ভাই, পরের ও-বাসা;
  নিজ হাতে গড়া মোর কাঁচা ঘর—খাসা!"

উপদেশ-পরের অধীন পরের বাড়ীতে বাস করার চেয়ে স্বাধীন-
ভাবে নিজের কুঁড়ে ঘরে বাস করা ঢের ভাল। 

‘স্বাধীনতার সুখ’ তেমনি একটি অসাধারণ শ্রেষ্ঠ বাংলা কবিতা। যা আজো লোকের মুখে মুখে ঘুরে বেড়ায়। এই কবিতাটি লিখেছেন রজনীকান্ত সেন। 

রচনাবলী
রাজশাহী থেকে প্রকাশিত মাসিক পত্রিকা ‘উৎসাহ’ এ লিখতেন রজনী। প্রকাশিত হতো তার রচনাবলী। তার কবিতা ও গানের বিষয়বস্তু মূখ্যত: দেশপ্রীতি ও ভক্তিমূলক। হাস্যরস-প্রধান গানের সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়। জীবিত থাকাকালে তিনটি গ্রন্থ রচনা করেছেন তিনি। সেগুলো হলো -

বাণী (১৯০২)
কল্যাণী (১৯০৫)
অমৃত (১৯১০)
অভয়া (১৯১০)
আনন্দময়ী (১৯১০)
বিশ্রাম (১৯১০)
সদ্ভাবকুসুম (১৯১৩)
শেষদান (১৯১৬)

তন্মধ্যে - বাণী এবং কল্যাণী গ্রন্থটি ছিল তার গানের সঙ্কলন বিশেষ। তিনি কান্ত কবি নামেও পরিচিত। অমৃত কাব্যসহ দু'টি গ্রন্থে বর্ণিত রয়েছে শিশুদের পাঠ্য উপযোগী নীতিবোধ সম্পর্কীয় ক্ষুদ্র কবিতা বা ছড়া। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কণিকা কাব্যগ্রন্থটিই তাকে অমৃত কাব্যগ্রন্থ রচনা করতে ব্যাপক প্রভাবান্বিত করেছে।

উল্লেখযোগ্য সাহিত্য-কর্ম এবং অবিস্মরণীয় আধ্যাত্মিক গানগুলো রচনার মাধ্যমে রজনীকান্ত সেন অমরত্ব লাভ করে চিরস্মরণীয় হয়ে রয়েছেন। প্রধানতঃ তার গানগুলো হিন্দুস্তানী শাস্ত্রীয় সঙ্গীত ঘরণার। এতে তিনি কীর্তন, বাউল এবং টপ্পার যথাযথ সংমিশ্রণ ঘটাতে সক্ষমতা দেখিয়ে ভারতীয় উপমহাদেশের অগণিত শ্রোতা-লেখকের মন জয় করেছেন।

রজনীকান্ত ১৯১০ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর মারা যান।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম