৩৪ বসন্ত পেরিয়ে তিশা

৩৪ বসন্ত পেরিয়ে তিশা

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৪৭ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১২:২৪ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নুসরাত ইমরোজ তিশা

নুসরাত ইমরোজ তিশা

একলাই খাবা, আমারে দিবা না? কোকাকোলার জনপ্রিয় বিজ্ঞাপনে সেই সরলতা সুন্দর মুখের তরুনীকে দেখে সবাই মুগ্ধ হয়েছিল। কিংবা সিটিসেলের বিজ্ঞাপনে ‘নিশিতে যাইয়ো ফুলো বনে’র সেই মিষ্টি হাসির কন্যা। মডেলিং জগতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার পর নাট্যজগতে পদচারনা, সেইখানেও সফল। ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ সহ একাধিক চলচ্চিত্রেও নিজেকে করেছেন সম্মুজ্বল। তিনি টেলিভিশন জগতের অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা।

১৯৮৬ সালের আজকের এইদিনে জন্মগ্রহণ করা এই স্বনামধন্য অভিনেত্রী আজ পেরোচ্ছেন জীবনের ৩৪ টি বছর।

শুরুটা ১৯৯৫ সালে, নতুন কুঁড়িতে শ্রেষ্ট শিশুশিল্পী হিসেবে বিজয়ী হওয়ার পর গান থেকে নাচ, অভিনয় সব শাখাতেই প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছিলেন। তার অভিনীত প্রথম টিভি নাটক ছিলো ‘সাতপোড়ে কাব্য’। তবে শিশু শিল্পী হিসেবে আলোচনায় আসেন হুমায়ূন আহমেদের ‘প্যাকেজ সংবাদ’ নাটক দিয়ে। এরপর বেশ কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেন।

পরিণত অবস্থায় প্রথম ক্যামেরার সামনে আসেন কোকাকোলার বিজ্ঞাপনে, আর শুরুতেই বাজিমাত। একই বছর সিটিসেলের বিজ্ঞাপনে জনপ্রিয়তা আরো বেড়ে যায়। কেয়া কসমেটিকস এর বিজ্ঞাপন করে নিজেকে মডেলিং জগতে শীর্ষস্থানে নিয়ে আসেন তিশা।

মডেলিং জগতের সাফল্যের পর টিভি নাটকে নিজেকে নিয়মিত করেন তিশা। অরন্য আনোয়ারের ‘নুরুল হুদা একদা ভালোবেসেছিল’, মোস্তফা সারোয়ার ফারুকীর ক্যারাম ১ম পত্র ও ৬৯ ছিল সেই যাত্রায় প্রথম ধাপ। মাহফুজ আহমেদের বিপরীতে ‘অতঃপর নুরুলহুদা’য় সফল অভিনয়ের পর ৪২০, শেষ প্রান্তে, কফি হাউজ, প্রভাতী সবুজ সংঘ, ইট কাঠের খাঁচা শিরোনামের নাটকগুলো ছিলো  একে একে নিজেকে প্রমান করার প্রয়াস।

মডেলিং, নাটকের বাইরে চলচ্চিত্রেও নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ফারুকীর জনপ্রিয় সিনেমা ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ দিয়ে চলচ্চিত্র যাত্রা শুরু করেন তিশা। এরপর একে একে টেলিভিশন, অস্তিত্ব, ডুব, হালদায় চলচ্চিত্রে দেখিয়েছেন অভিনয়ের মুন্সিয়ানা। তারেক মাসুদের ‘রানওয়ে’তে অতিথি শিল্পী হিসেবেও অভিনয় করেছেন। 

অভিনয় করতে গিয়ে বেশ কয়েকজন অভিনেতার সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন তিশা। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছে মোশাররফ করিম ও তাহসানের সঙ্গে জুটি। 

বর্ণিল ক্যারিয়ারে পেয়েছেন সেরা অভিনেত্রী হিসেবে দুইবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের সম্মান। দেশের বেসরকারি সবচেয়ে জনপ্রিয় পুরস্কার মেরিল প্রথম আলোতে সর্বোচ্চ পুরস্কারের মালিক তিনি। এখন পর্যন্ত মোট ১৪টি এমন পুরস্কার নিজের করে নিয়েছেন। 

ব্যক্তিজীবনে বিয়ে করেছেন জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সারোয়ার ফারুকীকে। বেশ সুখেই সংসার করছেন তারা। তাদের মিডিয়া জীবন ও ব্যক্তিজীবন নিয়েও নেই কোনো গুঞ্জন।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস