২০০০ বছর আগে করোনাসহ কয়েকটি বিপদের কথা বলেছিল তুর্কি ক্যালেন্ডার!

২০০০ বছর আগে করোনাসহ কয়েকটি বিপদের কথা বলেছিল তুর্কি ক্যালেন্ডার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:১৯ ২৬ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৯:২৮ ২৬ মার্চ ২০২০

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় তৎপরতা

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় তৎপরতা

বিশ্বের ১৯৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস সম্পর্কে ২০০০ হাজার বছর আগে প্রাচীন তুর্কি ক্যালেন্ডারে বলা হয়েছিল। ওই ক্যালেন্ডারে বিশ্বের জন্য কয়েকটি বড় বিপদ আসার কথা রয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

তুর্কি জ্যোতিষবিদরা প্রাচীন তুর্কি ক্যালেন্ডারে ২০২০ সালে বিশ্বজুড়ে এক ভাইরাস ছড়ার পূর্বাভাসের কথা উল্লেখ করেন। ওই ভাইরাসটির সংক্রমণে গোটা বিশ্ব মহামারির শিকার হবে। করোনাসহ আরো কয়েকটি বিপর্যয়ের কথা ওই ক্যালেন্ডারে উল্লেখ রয়েছে।

প্রাচীন তুর্কি ক্যালেন্ডার যিশু খ্রিস্টের জন্মের ২০৯ বছর আগে তৈরি হয়। সেখানে ভাইরাসের প্রধান উপসর্গ সর্দি-কাশি-জ্বর ও শ্বাসকষ্ট হিসেবে উল্লেখ করা হয়। করোনার ক্ষেত্রে এসব উপসর্গ রয়েছে। ভাইরাসটি দমন করতে একটি গাছের কথা বলা হয়েছে। উড়ি হিন্দি নামের গাছের পাতার রস করোনাভাইরাসের অব্যর্থ ওষুধ বলে ক্যালেন্ডারে দাবি করা হয়।

২০২০ সালে ভয়াবহ আগুন ও ভূমিকম্পের মতো দুর্যোগের দাবি করে প্রাচীন তুর্কি ক্যালেন্ডার। সেখানে বছরটিকে ইঁদুরের প্রভাবের বছর বলা হয়। এর মধ্যে অস্ট্রেলিয়ায় ভয়াবহ দাবানল হয়েছে। চীনে ইঁদুর থেকে হান্টাভাইরাস ছড়াচ্ছে।

করোনার তাণ্ডবে এখনো ২২ হাজার ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন প্রায় পাঁচ লাখের কাছাকাছি। এ ভাইরাস থেকে মুক্তি পেয়েছেন এক লাখ ১৭ হাজার ৬০৪ জন। 

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথমবারের মতো শনাক্ত হয় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এরই মধ্যে বিশ্বের অন্তত ১৯৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। এ ভাইরাসে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২২ হাজার ২৬ জন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ