হাওরে নৌকাডুবি, ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার

হাওরে নৌকাডুবি, ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১৬ ৫ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১১:৪৫ ৬ আগস্ট ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

নেত্রকোনার মদন উপজেলার হাওরে ইঞ্জিনচালিত নৌকাডুবে ১৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বুধবার বেলা দেড়টার দিকে উপজেলার গোবিন্দাশ্রী এলাকায় ৪৮ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়।

মদনের ইউএনও বুলবুল আহমেদ জানান, খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার কাজ শুরু করেন ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মীরা। ৩০ জন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা ১৭ যাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেন।

মদনের উচিৎপুর ঘাট থেকে ছেড়ে আসা ওই নৌকা যাত্রীদের মধ্যে এখনো একজন নিখোঁজ রয়েছে বলে ইউএনও জানান। এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। আঁধার নেমে আসায় ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার কাজ স্থগিত করেছে।

মৃতরা হলেন, ময়মনসিংহের কানাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ও মারকাসুন্না হাফিজিয়া মাদরাসার শিক্ষক মাফুজুর রহমান, তার ছেলে মাদরাসা ছাত্র আসিফ মিয়া, মাহমুদ মিয়া, ইসা মিয়া, হেলাল উদ্দিনের ছেলে জাহিদ হাসান, ওয়াজ উদ্দিনের মেয়ে লুবনা আক্তার ও জুলফা আক্তার, রেজাউল করিম, সাইফুল ইসলাম, জুবায়ের, হামিদুর ইসলাম, আজাহারুল ইসলাম, শফিকুর রহমান, তার ছেলে সামান, শামিম হাসান, মুজাহিদ ও শহিদুল ইসলাম।

দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া মাদরাসা শিক্ষক মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, তারা সবাই ময়মনসিংহের কানাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তারা নৌকায় করে হাওরে বেড়াতে বের হয়েছিলেন।

তিনি নিজে নৌকার ছাদে ছিলেন জানিয়ে বলেন, নৌকাটি হঠাৎ বাতাসে উল্টে গেলে তিনি ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে সাঁতরাতে শুরু করেন। একপর্যায়ে তিনি ডুবে যেতে থাকলে গায়ের পাঞ্জাবি ছিঁড়ে ফেলেন এবং পায়জামা খুলে ফেলেন। এরপর সাঁতরে কূলে ওঠেন। নৌকাটিতে ধারণ ক্ষমতার বেশি যাত্রী ওঠানো হয়েছিল বলেও জানান তিনি।

নেত্রকোনার এসপি আকবর আলী মুন্সী জানান, এখনো একজন নিখোঁজ রয়েছেন। সন্ধ্যা হয়ে যাওয়ায় উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে আবার উদ্ধার অভিযান শুরু হবে।

ডিসি মঈন-উল ইসলাম জানান, নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে সাত হাজার করে টাকা দেয়া হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম