Alexa হংকংয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের ভবনে বিক্ষোভকারীদের আগুন

হংকংয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের ভবনে বিক্ষোভকারীদের আগুন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:০৫ ২৭ জানুয়ারি ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

হংকংয়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের বসবাসের জন্য তৈরি করা একটি নতুন ভবনে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।

রোববার চীন সীমান্তবর্তী ফ্যানলিং এলাকায় এই অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে বলে বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

ঘটনার সময় রয়টার্সের এক সাংবাদিক কালো মুখোশ পরা কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে ওই পাবলিক হাউজিং ব্লকে দৌড়ে গিয়ে একটি ককটেল জ্বালিয়ে দিয়ে পালিয়ে যেতে দেখেন। এরপরই ভবন থেকে কালো ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায় এবং ফায়ার এলার্ম বাজতে শোনা যায়।

দমকলকর্মীরা জানিয়েছেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে এতে ভবনটির দরজা-জানালাসহ কিছু অংশের ক্ষতি হয়েছে।

মূলত প্রতিষেধকহীন এই ভাইরাসটি যেন গণহারে ছড়িয়ে না পড়ে এ জন্য আক্রান্তদেরকে পৃথক রাখতে এ ভবনটি ব্যবহারের পরিকল্পনা করেছিল কর্তৃপক্ষ। তবে এটির অবস্থান আবাসিক এলাকার খুব কাছে হওয়ায় এনিয়ে বিরোধীতা করছে সাধারণ জনগণ।

এছাড়া চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে আতঙ্ক বাড়তে থাকায় চীনা মূল ভূখন্ডের সঙ্গে হংকং সীমান্ত বন্ধ করে দেয়ার জন্যও সরকারের ওপর চাপ বাড়ছে।

রোববার হংকংয়ের শত শত নাগরিক ওই ভবন অভিমুখী রাস্তা ইট ও অন্যান্য জিনিস দিয়ে আটকিয়ে রেখে বিক্ষোভ করেছে।

স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেছেন, “সরকার ভাইরাস আক্রান্তদেরকে আলাদা করে রাখার জন্য এই হাউজিং এস্টেটকে বেছে নেয়ায় আমরা অসন্তুষ্ট। কারণ, এ ভবনটি একটি আবাসিক এলাকা এবং একটি প্রাথমিক স্কুলের খুবই কাছে।”

হংকংয়ে ৭ মাস ধরে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সামলাতে হিমশিম নেত্রী ক্যারি লাম এবার জনস্বাস্থ্য সমস্যা মোকাবেলার কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন।

হংকংয়ের বিক্ষোভকারীরা তাদের ওপর চীনের হস্তক্ষেপ বাড়তে থাকা নিয়ে ক্ষুব্ধ। তার মধ্যে এখন চীনের উহান থেকে নতুন করোনাভাইরাস ছড়ানোর বিষয়টি হংকং কর্তৃপক্ষের ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করেছে।

করোনাভাইরাসের বিস্তার নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে হংকংয়ের নেত্রী ক্যারি লাম জরুরি অবস্থা ঘোষণা করাসহ চীনে সবধরনের সরকারি সফর বাতিল এবং উহানের সঙ্গে পরিবহন যোগাযোগ বন্ধ করলেও চীনা মূল ভূখন্ড থেকে লোকজনের হংকংয়ে আসা বন্ধ করেননি।

চীনের সঙ্গে সব সীমান্ত ক্রসিং বন্ধ করাটা বাস্তবসম্মত হবে না বলে মন্তব্য করেছেন লাম।

গত বুধবার হংকংয়ে চীনের উহান থেকে দ্রুত গতির ট্রেনে শেনঝেন হয়ে আসা একজনের দেহে ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে। তারপর এ সংখ্যা বেড়েছে। সংক্রমণ ধরা পড়াদের মধ্যে একজনের অবস্থা শনিবার খারাপও হয়ে পড়ে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী