স্লোভেনিয়ায় পোড়ানো হলো ট্রাম্পের স্ত্রীর মূর্তি

স্লোভেনিয়ায় পোড়ানো হলো ট্রাম্পের স্ত্রীর মূর্তি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:২১ ৯ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১২:২৬ ৯ জুলাই ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের জন্মস্থান স্লোভানিয়ার সেভনিকা শহরে তার আদলে তৈরি কাঠের ভাস্কর্যটি পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।

গত ৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, দেশের ঐতিহাসিক ভাস্কর্য বা স্মারক যারা উপড়ে ফেলছে কিংবা নষ্ট করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঠিক ওইদিনই মেলানিয়ার মূর্তি পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে দাবি করেছেন এর আর্থিক যোগানদাতা মার্কিনি শিল্পী ব্রাড ডাউনি।

তিনি জানান, মার্কিন স্বাধীনতা দিবস অর্থাৎ ৪ জুলাই মেলানিয়া ট্রাম্পের ওই কাঠের ভাস্কর্য পুড়িয়ে ফেলা হয় । ভাস্কর্য পুড়িয়ে দেয়ার পর ৫ তারিখে স্থানীয় পুলিশ সেটিকে সরিয়ে নেয়। এই ঘটনায় একটি মামলাও দায়ের করেছেন ব্র্যাড ডাউনি।

স্লোভানিয়া পুলিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, তারা এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে এ ঘটনায় হোয়াইট হাউজ কিংবা মেলানিয়ার কাছ থেকে কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। ২০১৯ সালের জুলাইয়ে এই মূর্তিটি উদ্বোধন করা হয়।

ডাউনি রয়টার্সকে বলেছেন, তিনি জানতে চান কারা এই মূর্তিকে লক্ষ্যবস্তু বানালো এবং কেন?

স্লোভানিয়া পুলিশের মুখপাত্র আলেঙ্কা ড্রেনিক বলেন, এখনো তদন্ত পুরোপুরি শেষ হয়নি। এর আগে গত জানুয়ারিতে স্লোভানিয়ার মোরাভচে শহরেও ট্রাম্পের আদলে তৈরি একটি ভাস্কর্য পুড়িয়ে ফেলা হয়েছিল।

সংবাদ সংস্থা বিবিসির তথ্যানুযায়ী, স্লোভেনিয়ায় বেড়ে উঠেছেন মেলানিয়া, যখন দেশটি যুগোস্লাভিয়ার অংশ ছিল। এই স্লোভেনিয়ান মডেল ৯০ এর দশকে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন অভিবাসী হয়ে।

২০১৬ সালে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর স্লোভেনিয়া পর্যটকদের টানতে থাকে। মেলানিয়ার ছোটবেলার জীবন নিয়ে কৌতূহল মেটান পর্যটকরা।

এই স্লোভেনিয়ায় কেবল মেলানিয়া নয়, ট্রাম্পের মূর্তিও তৈরি হয়েছিল গত বছরের আগস্টে। রাজধানী লুবিয়ানার পূর্ব দিকে প্রায় ৮ মিটার উচ্চতার মূর্তিটি গত জানুয়ারিতে পুড়িয়ে দেয় অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীরা।

সূত্র: বিবিসি

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ