Alexa স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্ন, সহায়তা কামনা

স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্ন, সহায়তা কামনা

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১৬ ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৫:২৭ ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

উজ্জ্বল মিয়া

উজ্জ্বল মিয়া

শিক্ষাজীবন শেষে হতদরিদ্র পরিবারের হাল ধরার স্বপ্ন দেখেছিলেন ময়মনসিংহ আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের স্নাতকোত্তরের মেধাবী ছাত্র উজ্জ্বল মিয়া। কিন্তু হঠাৎ দুটি কিডনি বিকল হলে সেই স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে। এদিকে টাকার অভাবে চিকিৎসা বন্ধ রেখে বাড়িতে এখন মৃত্যুর প্রহর গুনছেন তিনি। চিকিৎসকদের মতে, উজ্জ্বলের দুটি কিডনি পরিবর্তন করলে তাকে বাঁচানো সম্ভব। তবে এজন্য বিপুল পরিমাণ টাকা লাগবে। তাই সমাজের সবার কাছে সহায়তা কামনা করেছেন উজ্জ্বলের বাবা, শিক্ষক ও সহপাঠীরা। 

উজ্জ্বল ময়মনসিংহের গৌরীপুরের ভাংনামারী ইউপির গজারিয়া গ্রামের বর্গা চাষি আহম্মদ আলীর ছেলে। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়।

উজ্জ্বলের বাবা আহম্মদ আলী জানান, ছোটবেলা থেকে উজ্জ্বল বেশ মেধাবী। তাই অনেক কষ্টে ছেলের লেখাপড়ার খরচ চালান তিনি। স্বপ্ন ছিল লেখাপড়া শেষে একদিন পরিবারের হাল ধরবে তার ছেলে। কিন্তু ছেলের দুটি কিডনি বিকল হলে সেই স্বপ্ন আজ দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।
 
তিনি আরো জানান, প্রায় তিন মাস আগে উজ্জ্বলের কিডনি বিকল রোগ ধরা পড়ে। চিকিৎসক বলেছেন, দুটি কিডনি দ্রুত পরিবর্তন করতে না পারলে তার ছেলেকে বাঁচানো যাবে না। এজন্য খরচ হবে ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা। এরইমধ্যে নিজের জমানো টাকা, সম্বল বিক্রি ও ধার করে ছেলেকে চিকিৎসা করিয়ে সর্বস্বান্ত হয়েছেন তিনি। এখন উজ্জ্বলের শিক্ষক, সহপাঠী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের আর্থিক সহযোগিতায় চিকিৎসা চলছে।
 
উজ্জ্বল জানান, আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে স্নাতকোত্তর অধ্যয়নের পাশাপাশি তিনি গৌরীপুর উপজেলার ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির (ষষ্ঠ পর্ব) একজন সার্ভিস কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি একটি এনজিওতে চাকরির নিয়োগপত্র পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু চাকরিতে যোগদানের আগে তার শরীরে কিডনি রোগ ধরা পড়ে। এ কারণে তিনি আর চাকরিতে যোগদান করতে পারেনি।

এ সময় তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে বাঁচার আকুতি জানান তিনি। সুস্থ হয়ে তিনি পরিবারের হাল ধরতে চান। এজন্য সবার কাছে আর্থিক সহযোগিতা কামনা করেন।

এদিকে উজ্জ্বলের চিকিৎসার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজের শিক্ষক ও ভাংনামারীর ইউপি চেয়ারম্যান মফিজুন নূর খোকা বলেন, ভাংনামারী ইউপির পাশেই উজ্জ্বলের বাড়ি। স্থানীয় একটি স্কুল থেকে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়ে সৈয়দ নজরুল কলেজে থেকে স্নাতক পাস করে সে। বিভিন্ন সময়ে পড়াশোনার খরচ যোগাতেও তাকে সহযোগিতা করেছি।
 
তিনি আরো বলেন, হঠাৎ করে উজ্জ্বলের এমন অসুস্থতার কথা শুনে কলেজের শিক্ষকদের পক্ষ থেকে সামান্য অনুদান দেয়া হয়েছে। উজ্জ্বলের চিকিৎসার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি। 

আনন্দমোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ মোশারফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, মেধাবী ছাত্র উজ্জ্বলকে বাঁচানোর জন্য নিজেদের সহযোগিতার পাশাপাশি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে অন্যদেরও উৎসাহিত করছি।

গৌরীপুর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা নন্দন কুমার দেবনাথ জানান, উজ্জ্বল ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির (ষষ্ঠ পর্ব) একজন কর্মী। উজ্জ্বলকে বাঁচাতে আর্থিক সাহায্যে চেয়ে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সহপাঠীরা ব্যানার সাঁটিয়েছে। এক্ষেত্রে তিনিও সবার সহযোগিতা কামনা করেন। 

উজ্জ্বলকে সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা: উজ্জ্বল মিয়া, অ্যাকাউন্ট নাম্বার-৭০১৭০১৯৯৯৭০৯৬, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, কলতাপাড়া ময়মনসিংহ শাখা, বিকাশ নম্বর -০১৯৩৭৯২৩১৮২ (ব্যক্তিগত)।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ