Alexa স্ত্রীর প্রেমিককে ‍তিন টুকরো করল স্বামী!

স্ত্রীর প্রেমিককে ‍তিন টুকরো করল স্বামী!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৪৫ ২১ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৬:৫০ ২২ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বন্ধুর মেয়ের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ায় ভারতের বীরভূমের সিপিএম নেতা সুভাষচন্দ্র দে নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে দেশটির পুলিশ।

নিখোঁজের তিন দিন পর মাটি থেকে তোলা হলো সুভাষচন্দ্র দে নামের এক সিপিএম নেতার খণ্ডিত মরদেহ। সোমবার সকালে ওই নেতার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বীরভূম জেলার দুবরাজপুরের একটি পুকুর পাড়ের বাঁশবাগানে তার মাথাহীন শরীর বস্তাবন্দী করে পুঁতে রাখা হয়েছিল। তবে এখনো তার দুই পা এবং মাথা উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

জানা যায়, পুলিশের হাতে ধরা পড়া খুনি এবং তার সহযোগীর দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই খণ্ডিত দেহ উদ্ধার হয়েছে। সেই সঙ্গে উঠে এসেছে ঘটনার চাঞ্চল্যকর তথ্য।

বীরভূম পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে, সুভাষ চন্দ্রে এক বন্ধুর মেয়ের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। নিখোঁজ হওয়ার দিন শুক্রবারও তিনি ওই তরুণীর বাড়িতে গিয়েছিলেন। তিনি যখন ওই তরুণীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে ছিলেন, তখন তার স্বামী মতিউর রহমান বাড়ি ফিরে আসেন।
 
নিজের স্ত্রীকে সুভাষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখে রাগের মাথায় তিনি সঙ্গে সঙ্গে শাবল দিয়ে আঘাত করেন তার ঘাড়ে। এর পর মৃত্যু নিশ্চিত করতে উপুর্যপরি আরো কয়েক বার আঘাত করেন। স্ত্রী-র সাহায্যে দেহটি তিন টুকরো করেন।

এর পর মাথা আর দুই পা ভাসিয়ে দেয়া হয় পানিতে। দেহের বাকি অংশ একটা চটের ব্যাগে ভরে তাদের বাড়ির কাছে একটি পুকুরপাড়ে বাঁশবাগানে পুঁতে দেন স্বামী-স্ত্রী।

নানুর থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পুরো ঘটনা মতিউর এবং তার স্ত্রী পুলিশের জেরার মুখে স্বীকার করে নিয়েছেন। পরে তাদের দেখানো জায়গা থেকেই উদ্ধার হয়েছে সুভাষের দেহের অংশ। 

সোমবার পুলিশ সুভাষের খণ্ডিত ধড় মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে মতিউর এবং তার স্ত্রীকে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে