Alexa স্কুল নিয়ে দুশ্চিন্তা কেন?

স্কুল নিয়ে দুশ্চিন্তা কেন?

রিয়াজুল হক উপ-পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক

প্রকাশিত: ১৬:১৫ ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৬:৩০ ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সকালে অফিসে যেতে হয় বাচ্চাদের স্কুলের সামনে দিয়ে। দূর-দূরান্ত থেকে ছোট ছোট বাচ্চাদের নিয়ে স্কুলে নিয়ে আসেনে অভিভাবকরা। অধিকাংশ মায়েরাই বাচ্চার স্কুল ছুটি হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করেন। 

স্কুলগুলোতে খেলার মাঠ নেই। বলা যায় দালান সর্বস্ব স্কুল। যে কারণে মায়েদের রাস্তার পাশেই রোদ, বৃষ্টি উপেক্ষা করেই দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।
বর্তমান সময়ে অভিভাবকরা অনেক শিক্ষিত। ফলে তাদের বিশ্লেষণ করার ক্ষমতাও অনেক বেশি। তাই সন্তানদের স্কুলে ভর্তি করার বিষয়ে কিছু বিষয়ে আপনারা বিবেচনা করে দেখতে পারেন:

১. আপনার সন্তানকে বাড়ির পাশের স্কুলে ভর্তি করান। এতে করে আপনি আপনার সন্তানের সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর রাখতে পারবেন। একইসঙ্গে তাকে কিংবা আপনাকে যাতায়াতের ধকল পোহাতে হবে না। নষ্ট হবে না আপনার মহামূল্যবান সময়।

২. নামকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পেছনে ছুটে বেড়ানোর প্রয়োজন নেই। যে সকল শিক্ষিত বাবা-মা আছেন, তাদের উচিত লেখাপড়ার জন্য দিনের সামান্য কিছু সময় সন্তানদের দেয়া। নিজেদের সন্তানদের নিজেরাই পড়ান। আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রী নিয়েছেন। অথচ আপনার সন্তানকে পড়াচ্ছেন এসএসসি/এইচএসসি পাশ করা কারো কাছে। তাহলে কি দাড়াচ্ছে? আপনি আপনার শিক্ষা, মেধা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য ব্যয় করছেন। নিজের সন্তানের জন্য নয়।

৩. অনেক অভিভাবক এখন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে অবজ্ঞা করেন। এটা ঠিক না। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বইয়ের সংখ্যা কম, বাচ্চাদের উপযোগী করেই বইগুলো তৈরি করা হয়, অতিরিক্ত বইয়ের চাপও থাকে না। তাছাড়া প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা সরকারি বইগুলোর ওপর হয়। অনেক কিন্ডার গার্টেন স্কুলে ১১/১২ টা বই পড়ানো হয়। এত বইয়ের চাপ অবুঝ বাচ্চাগুলোকে দিয়ে লাভ কী? অভিভাবকদের একটু চিন্তা করা প্রয়োজন।

৪. সন্তানের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখুন। স্কুলে, কোচিংয়ে আপনার সন্তান কোন ধরনের শারীরিক, মানসিক নিপীড়নের স্বীকার হলে জানার চেষ্টা করুন। বাবা-মাকে যদি সন্তান বলতে না পারে, তবে তাদের মধ্যে ভয় কাজ করবে। লেখাপড়ায় কখনো মনযোগী হতে পারবে না। বেশি সমস্যা মনে হলে অবশ্যই সন্তানকে সেখান থেকে বের করে নিয়ে আসুন। ওমুক স্কুলে না পড়লে আপনার সন্তানের ভবিষ্যত শেষ হয়ে যাবে, এমন ভাবার কোনো কারণ নেই।

৫. নামকরা স্কুল-কলেজ কখনোই আপনার সন্তানকে নামকরা করে দিতে পারবে না। বরং কিভাবে আপনার সন্তান দশজনের একজন হবে, সেই জেদ তার মনের মধ্যে ঢুকিয়ে দিন। যে স্কুলেই পড়ালেখা করুক আপনার সন্তান ভালো করবে।

বাচ্চাদের লেখাপড়া হোক আনন্দময়, উৎকণ্ঠা মুক্ত। অতিরিক্ত প্রত্যাশার চাপ যেন তার শৈশবের আনন্দ হারিয়ে না যায়, প্রতিটা অভিভাবকদের সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখা উচিত।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর