Alexa সৌদির আলোচিত সেই রাজকন্যার হদিস নেই!  

সৌদির আলোচিত সেই রাজকন্যার হদিস নেই!  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৪৮ ২০ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০২:১২ ২১ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সৌদি আরবের আলোচিত রাজকন্যা বাসমাহ বিন্ত সৌদ। দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের সাংবিধানিক সংস্কার এবং মানবাধিকার নিয়ে কথা বলা এই রাজকন্যার দীর্ঘ প্রায় ৮ মাস হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। 

তার এই রহস্যজনক নিখোঁজ হওয়া নিয়ে আলোচনা এখন সর্বত্র। ঘনিষ্ঠজনদের অভিযোগ, চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার সময় সৌদি রাজকন্যা বাসমাহকে আটক করা হয়।    

রাজকন্যার ঘনিষ্ঠ একজন জার্মান গণমাধ্যম ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, বাসমাহ চাইলেও তার বক্তব্য প্রকাশ করতে পারছেন না, কেননা তার সমস্ত যোগাযোগের উপর নজর রাখা হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে ঐ ব্যক্তি নাম প্রকাশ করতে চাননি।

বাসমাহ দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের সাংবিধানিক সংস্কার এবং মানবাধিকার নিয়ে কথা বলে আসছেন। তার মতো অনেকেই ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ক্রোধের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। রাজপরিবারের অনেককেই এজন্য হত্যা, গুম, কারাবন্দি ও হুমকির শিকার হতে হয়েছে।

রাজকন্যার নিখোঁজের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাসমাহর এক বন্ধু এবং ব্যবসায়িক সহকর্মী। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, শাসক পরিবার ঠিকই জানে বাসমাহ কোথায় আছেন। 

তিনি বলেন, দুটি সূত্র অনুযায়ী (রাজপরিবারের) এক নম্বর ব্যক্তি (মোহাম্মদ বিন সালমান) বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নন। কিন্তু আমি তাদের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করছি, তিনি জানেন। আমরাও জানতে চাই সে (বাসমাহ) কোথায় আছে, কেন তাকে বন্দি করে রাখা হয়েছে?

বাসমাহ নিয়মিত টুইটার ব্যবহার করলেও ফেব্রুয়ারির পর থেকে অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টে নীরব রয়েছেন।  

৫ সন্তানের জননী বাসমাহ ২০০৬ সাল থেকে সৌদি গণমাধ্যমে নিয়মিত লেখালেখি করেন। কিন্ত তার ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড ও জনগণের হয়ে কথা বলার বিষয়টি ভালোভাবে নেয়নি দেশটির শাসকরা।

বিবাহ বিচ্ছেদের পর ২০১০-২০১১-র দিকে তিনি লন্ডনে পাড়ি জমান। পরিচিতি পান গণমাধ্যমে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে আরব অঞ্চলের দুর্নীতি, মানবাধিকার এবং সম্পদের বৈষম্য নিয়ে কথা বলে ব্যাপক আলোচনায় আসেন বাসমাহ। সৌদি আরবে ধর্মীয় পুলিশের ক্ষমতা হ্রাস, নারীদের অধিকারসহ বিভিন্ন সাংবিধানিক সংস্কারের দাবিও জানান তিনি। প্রশাসনের সমালোচনা করলেও রাজ পরিবারের বিরুদ্ধে অবশ্য কখনো সরাসরি কোনো কথা তাকে বলতে শোনা যায়নি।

২০১৫ সালের দিকে সৌদি আরবে ফিরে আসেন বাসমাহ। লন্ডনের বেশ কিছু ব্যবসা তিনি গুটিয়ে ফেলেন। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বিবিসি অ্যারাবিককে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইয়েমেন যুদ্ধের ইতি টানতে সৌদি আরবের প্রতি আহবান জানান। এরপর থেকে তাকে আর গণমাধ্যমে দেখা যায়নি।

বাসমাহ সাবেক সৌদি রাজার ১১৫ সন্তানের একজন। এই পরিবারের একটি অংশকে বর্তমান রাজা সালমান ও তার পুত্রের সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দী বলে মনে করা হতো।

বর্তমান সৌদি রাজপরিবারের মোট ১৪ হাজার সদস্য রয়েছেন, যাদের মধ্যে ক্ষমতা বিস্তারের জন্য বেশ কয়েকটি বিভাজন রয়েছে।  সূত্র : ডয়চে ভেলে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ/আরএ