সেনামুক্ত হটস্প্রিং, শিগগিরই সেনা অপসারণ শেষ হবে গালওয়ানে

সেনামুক্ত হটস্প্রিং, শিগগিরই সেনা অপসারণ শেষ হবে গালওয়ানে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৩৪ ৮ জুলাই ২০২০  

স্যাটেলাইট থেকে নেয়া ছবি

স্যাটেলাইট থেকে নেয়া ছবি

গালওয়ান উপত্যকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে ধাপে ধাপে সেনা সরাচ্ছে চীন। বুধবার সেই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলো গালওয়ানের আরো একটি পেট্রোলিং পয়েন্টে। বাকি আরো একটি পয়েন্ট থেকেও সেনা সরানোর প্রক্রিয়া চলছে এবং তা আগামীকালের মধ্যেই সম্পূর্ণ হবে বলে জানা গেছে। এরপরেই গালওয়ান উপত্যকা থেকে দু’পক্ষেরই সেনা সরানোর প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সূত্রে এ খবর পাওয়া গেছে। সেনার ওই সূত্র জানিয়েছে, প্যাংগং লেক এলাকায় ফিঙ্গার পয়েন্টগুলো নিয়ে এখনো জট কাটেনি।

জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা (এনএসএ) অজিত ডোভালের ভিডিও বৈঠকে ঠিক করা হয় যে, ২ কিলোমিটার বাফার জোন থাকবে যেখানে কোনো দেশের সেনা থাকবে না। সেই বৈঠকের পরেই সেনা সরাতে শুরু করেছিল চীনের সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার গালওয়ান উপত্যকার ১৪ নম্বর পেট্রোলিং পয়েন্ট এলাকায় বৈঠকটি সম্পন্ন হয়। ওখানেই গত ১৫ জুন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছিলেন ভারতীয় ২০ সেনা। এরপর থেকেই বুধবার হট স্প্রিং এলাকায় পেট্রোল পয়েন্ট-১৫ থেকে পারস্পারিক সেনা সরানোর প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হয়েছে।

এদিকে গোগরা এলাকার ১৭এ পেট্রোল পয়েন্টেও সেনা সরাতে শুরু করেছে চীনের সেনাবাহিনী। সেই প্রক্রিয়া বৃহস্পতিবারের মধ্যেই শেষ হতে পারে বলেই মনে করছেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। এরপরেই গালওয়ান উপত্যকায় স্থিতাবস্থা ফিরবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত রোববার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং লি’র সঙ্গে দীর্ঘ ভিডিও বৈঠক করেন এনএসএ ডোভাল। সেই বৈঠক সূত্রে গালওয়ান উপত্যকা থেকে সেনা সরাতে সম্মত হলেও প্যাংগং লেক এলাকা ছাড়ার কোনো আশ্বাস দেয়নি বেইজিং। এই প্যাংগং লেক এলাকায় ১ থেকে ৮ পর্যন্ত ৮টি ফিঙ্গার পয়েন্ট রয়েছে। সবগুলো ফিঙ্গার পয়েন্টই নিজেদের বলে দাবি করেছে ভারত।

অন্যদিকে, চীনের দাবি ফিঙ্গার ৮ থেকে ফিঙ্গার ৪ পর্যন্ত তাদের। ওই ফিঙ্গার পয়েন্টগুলো দখল করে রেখেছে চীনের পিপল‌স লিবারেশন আর্মি (পিএলএ)।

ভারতীয় সেনা সূত্রের খবরে জানা গেছে, এই ফিঙ্গার-৪ এলাকা পিএলএ এখন পর্যন্ত না ছাড়লেও সেখানে তাদের চলাচল ভারতীয় সেনাদের নজরে এসেছে। সেনাদের গাড়ি ও বেশ কিছু তাঁবু সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।

সূত্র- আনন্দবাজার

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ