সূরা আল কাহাফের ১০ আয়াত সম্পর্কে হাদিসের সুসংবাদ

সূরা আল কাহাফের ১০ আয়াত সম্পর্কে হাদিসের সুসংবাদ

গাজী মো. রুম্মান ওয়াহেদ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:১৮ ৩ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১১:২৭ ৩ জুলাই ২০২০

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সূরা আল কাহাফ বেশি বেশি তেলাওয়াত করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সূরা আল কাহাফ বেশি বেশি তেলাওয়াত করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

আল কাহাফ (আরবি ভাষায়: الكهف) কোরআনুল কারিমের ১৮তম সূরা। আয়াত সংখ্যা ১১০টি এবং এর রুকুর সংখ্যা ১১টি। সূরা আল কাহফ মক্কায় অবতীর্ণ হয়েছে। 

এই সূরায় কুরাইশদের তিনটি প্রশ্নের কথা এবং প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়েছে। এই সূরায় হজরত মুসা এবং খিযির (আ.) এর ঘটনাটিও বর্ণনা করা হয়েছে।

আরো পড়ুন >>> জুমায় ‘সূরা আল কাহাফ’ পাঠের ফজিলত (ভিডিও)

সূরা আল কাহাফ পূর্ণ সরাটিই একটি ফজিলতপূর্ণ সূরা। তবে হ্যা! প্রথম দশ আয়াতের ফজিলতের ব্যাপারে হাদিসে সুসংবাদ এসেছে।

হজরত আবু দারদা রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত আছে, যে সূরা কাহাফের প্রথম ১০ আয়াত মুখস্ত করে সে দাজ্জালের ফিৎনা হতে নিরাপদ থাকবে। তার থেকে আরেকটি রেওয়ায়েতে শেষ ১০ আয়াতের ব্যাপারে উল্লিখিত ফজিলতের বর্ণনা রয়েছে। (মুসলিম, আবু দাউদ, তিরমিজি, নাসাঈ ও মুসনাদে আহমদ)।

সুতরাং প্রথম বা শেষ ১০ আয়াত অথবা উভয় দিক দিয়ে মোট ২০ আয়াত যে মুখস্ত করবে সেও উল্লিখিত ফজিলতের অন্তর্ভুক্ত হবে।

হজরত সাহাল ইবনে মুআয রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি সূরা কাহাফের প্রথম ও শেষ আয়াতগুলো পাঠ করে তার পা থেকে মাথা পর্যন্ত একটি নূর হয়ে যায়। আর যে পূর্ণ সূরা তেলাওয়াত করে তার জন্য জমিন থেকে আসমান পর্যন্ত নূর হয়ে যায়। (মুসনাদে আহমদ)।

হজরত আলী রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যে ব্যক্তি জুমার দিন সূরা কাহাফ তেলাওয়াত করবে, সে আট দিন পর্যন্ত সর্বপ্রকার ফেৎনা থেকে মুক্ত থাকবে। যদি দাজ্জাল বের হয় তবে সে দাজ্জালের ফিৎনা থেকেও মুক্ত থাকবে। 

অন্য রেওয়ায়েতে আছে এক জুমা থেকে অপর জুমা পর্যন্ত তার সব গুনাহ মাফ হয়ে যাবে। তবে উল্লিখিত গুনাহ মাফ হওয়ার দ্বারা সগিরা গুনাহ উদ্দেশ্য। কারণ ওলামায়ে কেরামের ঐকমত্য যে, কবিরা গুনাহ তওবাহ করা ছাড়া মাফ হয় না।

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সূরা আল কাহাফ বেশি বেশি তেলাওয়াত করার তাওফিক দান করুন এবং এর মর্মার্থ বুঝে তা থেকে শিক্ষা গ্রহণ ও ফজিলত অর্জন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে