Alexa সুখের সংসার গড়তে গিয়ে লাশ হলেন মিম

সুখের সংসার গড়তে গিয়ে লাশ হলেন মিম

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০০:৫২ ১৯ জানুয়ারি ২০২০  

নিহত মিম খাতুন

নিহত মিম খাতুন

প্রেমের টানে ঘর ছেড়েছিলেন মিম খাতুন। সুখের সংসারের আশায় প্রেমিককে বিয়েও করেন। কিন্তু সেই সুখ বেশিদিন সহ্য হয়নি তার। বিয়ের ৬ বছর পর স্বামীর বাড়ি থেকে লাশ হয়ে ফিরেছেন তিনি।

নিহত মিম খাতুন সিরাজগঞ্জ শাহজাদপুরের ইসলামপুর রামবাড়ী মহল্লার চাঁন মিয়ার মেয়ে। শুক্রবার সকালে পাবনার সাঁথিয়ায় শ্বশুরবাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনেই মৃত্যু হয়েছে মিমের।

নিহতের স্বজনরা জানান, স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন পরিকল্পিতভাবে নির্যাতনের পর মিমকে হত্যা করেছে। পরে মরদেহ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার নাটক সাজিয়েছে। এমনকি মিমের মৃত্যু খবর কাউকে না জানিয়েই সবাই পালিয়েছে।

মিমের বাবা চাঁন মিয়া বলেন, বিয়ের পর থেকেই স্বামী সিরাজুলের সঙ্গে ঝগড়া লেগে থাকতো মিমের। সে কোনো কাজ করতো না। সংসারের অশান্তির দায় মিমের উপর চাপিয়ে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন চালাতো। শুক্রবার সকালেও তুচ্ছ ঘটনার জেরে মিমকে মারধর ও হত্যার পর মরদেহ ঝুলিয়ে রাখে। কয়েকঘণ্টা পর তাদের এক প্রতিবেশী আমাদের মৃত্যুর সংবাদ জানান।

ময়নাতদন্ত শেষে আজ শুক্রবার বেলা ৩ টায় নিহতের লাশ শাহজাদপুরে এসে পৌঁছালে আত্মীয় স্বজন ও এলাকাবাসীর আহাজারিতে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা ঘটে। এদিন বাদ মাগরিব বিসিক বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়। নিহত মীমের আত্মীয় স্বজনেরা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তসাপেক্ষে সুবিচার দাবি করেছেন।

সাঁথিয়া থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, মরদেহ উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। পরে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। পলাতকদের ধরতে অভিযান চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর