Alexa সিসি ক্যামেরার লাইন কেটে বেনাপোল কাস্টমসে চুরি

সিসি ক্যামেরার লাইন কেটে বেনাপোল কাস্টমসে চুরি

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৫২ ১১ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২২:১৬ ১১ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সিসি ক্যামেরার লাইন কেটে গোপনীয় লকার ভেঙে মূল্যবান পণ্য সামগ্রী চুরি হয়েছে। তবে কি পরিমাণ চুরি হয়েছে তা জানা যায়নি।

সোমবার সকালে অফিস খুললে বিষয়টি ধরা পড়ে। এ ঘটনায় কাস্টম হাউসের যুগ্ম কমিশনার মো. শহিদুল ইসলামকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া ভোল্ট ইনচার্জসহ পাঁচজনকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এদিকে খবর পেয়ে কাস্টমসের বিভিন্ন কর্মকর্তাসহ ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কর্মকর্তা। এরপর ওই স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। বাইরের কাউকে সেখানে ঢুকতে দেয়া হয়নি। বিকেল ৫টা নাগাদ ডিবি, সিআইডি, পিবিআই, র‌্যাব ও বেনাপোল পোর্ট থানার কর্মকর্তারা ওই লকার কক্ষে ঢোকেন।

হাত-পায়ের ছাপ নির্ণয়ের সময় উপস্থিত ছিলেন ডিএসবির এএসপি তৌহিদুল ইসলাম, ইন্সপেক্টর সৈয়দ মামুন হোসেন, র‌্যাব কর্মকর্তা কামরুজ্জামান, আতিকুর রহমান, বেনাপোল কাস্টম হাউসের যুগ্ম কমিশনার শহিদুল ইসলাম, এআরও জিএম আশরাফ, বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি মামুন খান প্রমুখ। তারা যৌথভাবে তদন্ত করছে। তদন্তের পর জানা যাবে কি পরিমাণ মালামাল চুরি হয়েছে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের সহকারী কমিশনার উত্তম কুমার চাকমা বলেন, কাস্টম হাউসের পুরনো ভবনের দ্বিতীয় তলায় গোপনীয় একটি কক্ষে তালার পর লোহার লকার ভেঙে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ, ডলার ও টাকাসহ বিভিন্ন ধরনের জিনিসপত্র নিয়ে গেছে চোর। সেই কক্ষে ঢোকার আগে সংঘবদ্ধ চোর চক্র সিসি ক্যামেরার সবগুলো সংযোগ কেটে বিচ্ছিন্ন করে দেয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওই লকারে কাস্টম, কাস্টম শুল্ক গোয়েন্দা, বিজিবি ও পুলিশের উদ্ধার করা স্বর্ণ, ডলার বৈদেশিক মুদ্রা, কষ্টিপাথরসহ মূল্যবান দলিলাদি ছিল।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের যুগ্ম কমিশনার শহিদুল ইসলাম বলেন, কি পরিমাণ সম্পদ খোয়া গেছে এটা এ মুহূর্তে নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। খতিয়ানের হিসাব মিলিয়ে বিস্তারিত জানাতে পারবো।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর