Alexa সিলেটকে হারিয়ে শুভসূচনা চট্টগ্রামের

সিলেটকে হারিয়ে শুভসূচনা চট্টগ্রামের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:০৮ ১১ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৭:১৮ ১১ ডিসেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তার নামেই আয়োজন করেছে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। জয় দিয়েই বিপিএলের বিশেষ আসর শুরু করল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। প্রথম ম্যাচে সিলেট থান্ডারকে ৫ উইকেটে হারালো চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

বুধবার মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে আগে ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৬২ রান সংগ্রহ করে সিলেট থান্ডার। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১ ওভার ও ৫ উইকেট হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় চট্টগ্রাম।

১৬৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামে চট্টগ্রামের আভিস্কা ফার্নান্দো ও জুনাইদ সিদ্দিকি। দলীয় ২০ রানে ঘরে ফেরেন জুনাইদ। পরের বলে আশাহত করে ০ রানে প্যাভিলিয়নে ব্যাক করেন নাসির। সান্টোকির বলে জীবন মেন্ডিসের হাতে বলে তুলে দেন ৩৩ রান করা আভিস্কা। দাঁড়াতে পারেননি রায়ান বার্ল-ও। সিলেটের অধিনায়ক মোসাদ্দেকের বলে এলবি হয়ে ফেরেন তিনি। করেন ৩ রান। 

ইমরুল কায়েস ও ওয়ালটনে জয়ের পথ খুঁজতে থাকে চট্টগ্রাম। নিরাশ করেননি ইমরুল ও ওয়ালটন। দুই ব্যাটসম্যানেই চাপ কাটিয়ে ওঠে চট্টগ্রাম। জয় থেকে মাত্র ১৩ রান দূরে থাকতেই ক্যাচ তুলে ঘরে ফেরেন ইমরুল কায়েস। ফেরার আগে দলকে খাদের কিনারা থেকে তুলে জয়ের নিকটে এনে দেয়া এ ব্যাটসম্যান ৬১ রানের ইনিংস খেলেন।

এরপর আর উইকেটের দেখা পায়নি সিলেট। ওয়ালটনের অপরাজিত ৪৯ ও সোহানের ৫ রানে ৫ উইকেটের জয় ছিনিয়ে নেয় চট্টগ্রাম। সিলেটের হয়ে নাজমুল ইসলাম অপু নেন ২ উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে সাবধানী শুরুর চেষ্টায় ছিল সিলেট। তবে রুবেলের মনে ছিল অন্য কিছু।  নিজের ব্যক্তিগত প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই তিনি ৫ রানে ফেরান রনি তালুকদারকে। রুবেলের হাতে পতন হয় বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্রথম উইকেটের।

দলীয় ৬১ রানের মধ্যে টপঅর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় সিলেট। তবে সেখান থেকে দলকে টেনে তোলেন মোহাম্মদ মিথুন। নাসির হোসেনের বলে ছয় মেরে ৩০ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন মিথুন। অপরপ্রান্তে মিথুনকে সাপোর্ট দিতে থাকেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। 

এভাবেই এগোচ্ছিল সিলেট। শেষ ওভারে এসে রুবেলের বলে রায়াদ এমরিটের হাতে ক্যাচ তুলে দেন মোসাদ্দেক(২৯)। ৮৪ রানে অপরাজিত থেকে ১৬২ রানে ইনিংস শেষ করেন মিথুন। চট্টগ্রামের সফলতম বোলার রুবেল নেন ২ উইকেট।

ডেইলি বাংলাদেশ/এম