Alexa সিলগালা করা হাসপাতালে অস্ত্রোপচার, প্রসূতির মৃত্যু

সিলগালা করা হাসপাতালে অস্ত্রোপচার, প্রসূতির মৃত্যু

পাবনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৪:৫৮ ১২ নভেম্বর ২০১৯  

মৃত প্রসূতির নবজাতক

মৃত প্রসূতির নবজাতক

পাবনায় সিলগালা করা চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কথিত সার্জন সাজ্জাদ হোসেন ও তার সহযোগী আসাদুজ্জামানকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।  

সোমবার রাতে পৌর শহরের নারিকেলপাড়া মহল্লার ক্লিনিকটিতে এ ঘটনা ঘটে। মৃত তাছলিমা খাতুন উপজেলার বিলচলন ইউপির বোঁথড় গ্রামের ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী।

আটক কথিত সার্জন সাদ্দাম হোসেন বড়াইগ্রাম উপজেলার বাসিন্দা। তবে ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলু পালিয়ে গেছেন।

মৃতের স্বজনদের বরাতে চাটমোহর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. বায়েজীদ-উল ইসলাম জানান, সোমবার তাছলিমা খাতুনের প্রসব বেদনা উঠলে সিজার অপারেশনের জন্য স্বজনরা চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে ভর্তি করেন। রাত সাড়ে ৮টায় কথিত সার্জন সাদ্দাম হোসেন নীরব, ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলু, আসাদুজ্জামান ও দুই সেবিকা মিলে অস্ত্রোপচার শুরু করেন। এতে একটি মেয়ে নবজাতক ভূমিষ্ট হয়। এ সময় প্রসূতির অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে মৃতপ্রায় প্রসূতিকে সেলাই না করে কথিত সার্জন, তার সহকারী ও ক্লিনিক মালিক পালানোর চেষ্টা করে।

তিনি আরো জানান, বিষয়টি টের পেয়ে রোগীর স্বজনরা সার্জন ও তার সহযোগীকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে প্রসূতিকে উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চাটমোহর থানার ওসি সেখ নাসির উদ্দিন জানান, সাদ্দাম হোসেন ও তার সহকারী আসাদুজ্জামানকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে ।

চলতি বছরের ৩ জুলাই চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে এনেসথেসিয়া (অজ্ঞানকারী) চিকিৎসক ছাড়া রোগীর অস্ত্রোপচার ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে অস্ত্রোপচারের কারণে ক্লিনিক মালিককে জরিমানা করেন অ্যাসিল্যান্ড ইকতেখারুল ইসলাম। এছাড়া ক্লিনিকটি সিলগালা করে দেয়া হয়। তবে কাউকে না জানিয়ে সিলগালা ভেঙে আবারো ওই ক্লিনিকে অস্ত্রোপচার শুরু করে কথিত সার্জন সাদ্দাম হোসেন ও ক্লিনিক মালিক আমির হোসন বাবলু।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ