সিটি-নুরজাহানের ভোজ্যতেল বাজার থেকে তুলে নেয়ার নির্দেশ

সিটি-নুরজাহানের ভোজ্যতেল বাজার থেকে তুলে নেয়ার নির্দেশ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:০২ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৬:৩১ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

আইন অমান্য করে ভোজ্যতেল উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের অপরাধে সিটি গ্রুপ এবং নুরজাহান গ্রুপের ভোজ্যতেল এক সপ্তাহের মধ্যে বাজার থেকে তুলে নেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে দুই গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

সোমবার চট্টগ্রাম মহানগর আদালতের হাকিম আবু সালেম মোহাম্মদ নোমান বিএসটিআই ও নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে এ নির্দেশ দেন।

বিএসটিআইয়ের আইনজীবী আশরাফ উদ্দিন বলেন, বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়া এবং আইন অমান্য করে ‘ভিটামিন-এ’ সমৃদ্ধ না করেই ভোজ্যতেল উৎপাদন, বাজারজাত করে আসছে সিটি ও নুরজাহান গ্রুপ।

আইন অমান্য করার অপরাধে দুটি গ্রুপের ভোজ্যতেল বাজার থেকে তুলে নেয়ার জন্য বিএসটিআই ও নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এছাড়া সিটি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জহির উদ্দিন আহমদ এবং সিটি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফজলুর রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

আশরাফ উদ্দিন বলেন, বিএসটিআই আইন-২০১৮ এর ১৫ ধারার ২৭ উপধারা লঙ্ঘন করায় দুই প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বিরুদ্ধে দুই বছরের জেল ও এক লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়।

আবার একই আইনের ২১ ধারার ২৯ ধারা লঙ্ঘন করায় চার বছরের জেল ও দুই লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়।

এছাড়া ভোজ্যতেলে ‘ভিটামিন-এ’ সমৃদ্ধকরণ আইন ২০১৩ এর ৪(১) ধারার ১৬(১) ধারা লঙ্ঘন করায় এক লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড এবং ৪(২) ধারার ১৬(২) ধারা লঙ্ঘন করায় দুই লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড ও পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

গত ২ জানুয়ারি ভোজ্যতেল উৎপাদনকারী পাঁচটি শিল্পগ্রুপের বিরুদ্ধে মামলা করেন বিএসটিআইয়ের পরিদর্শক রাজীব দাশ গুপ্ত। 

অভিযোগে বলা হয়, পরীক্ষায় ভোজ্যতেলে ‘ভিটামিন-এ’ এর উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। যা বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) ২০১৮ এর ১৫ ও ২১ ধারা পরিপন্থী।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ