Alexa সিগারেটের জন্য দিয়াশলাই না পেয়ে হামলা

সিগারেটের জন্য দিয়াশলাই না পেয়ে হামলা

হাতীবান্ধা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৫১ ১২ জুন ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় সিগারেট ধরানোর জন্য দিয়াশলাই না দেয়ার অপরাধকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দুপুরে পাটিকাপাড়ার শিমুলতলা ও হাতীবান্ধা হাসপাতালে পৃথকভাবে এ হামলা চালানো হয়।

পাটিকাপাড়ার প্রভাবশালী বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাইয়ের হামলায় ওই ইউপির দুই মেম্বার ও এক গ্রাম পুলিশ আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই সাগরসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাঁধন পাটোয়ারী সিগারেট ধরানোর জন্য পারুলিয়া বাজারে গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদের নাতি আরাফাতের কাছে দিয়াশলাই চায়। এ সময় আরাফাত দিয়াশলাই না দেয়ায় তাকে মারধর করে বাঁধন। 

পরে গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদ ও তার ভাই মেম্বার আতিয়ার রহমান বাজারে এসে বাঁধন পাটোয়ারীকে গালিগালাজ করেন। 

এ ঘটনার জেরে বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই সাগর পাটোয়ারী বুধবার সকালে পারুলিয়া শিমুলতলা এলাকায় মেম্বার আতিয়ার রহমান ও গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদের উপর হামলা চালায়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে নিয়ে আসলে বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই হাসপাতালেও হামলা চালায়। 

এ সময় অপর মেম্বার আবুল কালাম ও বাঁধন পাটোয়ারীর বাবা লিচু মিয়াসহ তিনজন আহত হন। আহত গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে হাতীবান্ধা থানা পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ সময় হাতীবান্ধা থানায় এএসআই নারায়ণ চন্দ্রও আহত হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রলীগ সভাপতি বাঁধন পাটোয়ারী, তার ভাই সাগর পাটোয়ারীসহ চারজনকে গ্রেফতার করেন।

লালমনিরহাট সহকারী এসপি (বি-সার্কেল) তাপস সরকার বলেন, পুরো ঘটনা তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস